US criticises Israel's conduct of war: রাফায়তে ঢুকলে অস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করবে আমেরিকা! বাইডনের হুশিয়ারিকে পাত্তাও দিল না নেতানিয়াহু

প্যালেস্তাইনের (Palestine) বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার পর থেকে একাধিক দেশ ইজরায়েলের (Israel) বিপক্ষে গেলেও পাশে ছিল একমাত্র আমেরিকা (America)। বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী দেশ পাশে থাকায় এতদিন বুক ফুলিয়ে হামাস বাহিনীকে প্রতিরোধ করছিল নেতানিয়াহুরা। আমেরিকা থেকে অস্ত্রের যোগান পাচ্ছিল ইজরায়েল, কিন্তু এবার সেটাও বন্ধ হতে চলেছে। এবার এই যুদ্ধ নিয়ে নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করতে চলেছে জো বাইডন। সম্প্রতি ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, "ইজরায়েল আন্তর্জাতিক মানবিকাধ আইন লঙ্ঘন করছে, যা একেবারেই সমর্থনযোগ্য নয়"।

কিন্তু যে আমেরিকা এতদিন হামাসকে নির্মূল করার জন্য ইজরায়েলকে সমর্থন করছিল, তাঁদের মুখে এখন উল্টো সুর কেন? জানা যাচ্ছে,  বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুরা এবার দক্ষিণ গাজার রাফায় আক্রামণ করতে চলেছে। মূলত, এই এলাকায় সাধারণ প্যালেস্তাইনিদের বসবাস। এই এলাকায় হামাসের আনাগোনা সেভাবে নেই। কিন্তু ইজরায়েলে এবার প্রধান লক্ষ্য পড়শি দেশকে শেষ করা। সেই কারণেই আগামী দিনে প্যালেস্তাইনে সরাসরি আক্রমণ করার পরিকল্পনা করছে ইজরায়েল।

আর সেই কারণেই এবার ইজরায়েলের পক্ষ থেকে সমর্থন তুলে নিচ্ছে আমেরিকা। আসলে এই যুদ্ধে নেতানিয়াহুদের জন্য সবধরণের অস্ত্র সরবরাহ করছিল আমেরিকা। তবে বিগত কয়েকদিন ধরে তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে কোনওভাবেই ইজরায়েলকে থামানো যাবে না বলে হুশিয়ারি দিয়েছে নেতানিয়াহু। তাঁর দাবি, "কেউ পাশে না থাকলে আমরা একাই লড়ব। লড়ার মতো কিছু না থাকলে নিজেদের নখ দিয়ে লড়ব। ৮০ বছর ধরে ইহুদিদের গণহত্যা করা হচ্ছে। তথন আমাদের বাঁচাতে কেউ এগিয়ে আসেনি। কেউ পাশে নেই সেটা নয়, সারা বিশ্বের একাধিক মানুষ আমাদের সমর্থন করছে। তাঁরা আমাদের আসল উদ্দেশ্য জানে"।