Coronavirus Situation In West Bengal: কর্মীর শরীরে মারণ ভাইরাস, ১০ দিনের জন্য বন্ধ পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা ভবন
পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা (Photo Credits: Wikimedia Commons)

কলকাতা, ১৬ জুলাই: দিন যত যাচ্ছে, ততই করোনা বিধ্বস্ত পশ্চিমবঙ্গের (West Bengal) ছবি প্রকট হচ্ছে। এক কর্মী করোনা আক্রান্ত হওয়ায় আজ থেকে বন্ধ হয়ে গেল বিধানসভা। প্রতিদিন হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। বুধবার সারাদিনে সেই চিত্রটার কোনও বদল হল না। উল্টে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ১ হাজার। মঙ্গলবার সারা দিনে আরও হাজার জনের শরীরে করোনার জীবাণু মিলেছে। সবমিলিয়ে রাজ্যে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪ হাজার ছাড়িয়েছে। তবে এত কিছুর মধ্যে আশার খবর একটাই, ধীরে ধীরে বাড়ছে সুস্থতার হারও। করোনায় মৃতদের তালিকায় থাকা বেশিরভাগই কলকাতার বাসিন্দা। এখনও পর্যন্ত কলকাতাতেই ৫২৫ জন করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনায় মারা গেছেন ১৮৬ জন। হাওড়ায় করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৩৭।

আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখেও জেলাগুলির মধ্যে এখনও শীর্ষে কলকাতা। শহরে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৯৭৫ জন। কলকাতার পরেই আছে উত্তর ২৪ পরগনা। এই জেলায় সংখ্যাটা ৬ হাজার ৬৩২ জন। তৃতীয় স্থানে থাকা হাওড়ায় এখনও পর্যন্ত ৪ হাজার ৩৯০ জনের শরীরে এই মারণ ভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত করা গিয়েছে। রাজ্যের মধ্যে একমাত্র আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া এবং ঝাড়গ্রাম ছাড়া প্রতিটি জেলাতেই করোনা আক্রান্তের মৃত্যু ঘটেছে। এদিকে বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ঘোষণা করেন, এবার থেকে রাজ্যে কোনও করোনা যোদ্ধার (Corona Warriors) মৃত্যু হলে তাঁর পরিবারের একজন সদস্যকে চাকরি দেবে রাজ্য সরকার। সঙ্গে ১০ লক্ষ টাকার অর্থসাহায্য করা হবে।  করোনা যোদ্ধাদের সম্মানে দেওয়া হবে মানপত্র, মেডেল। সেই তালিকায় আছেন চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ, সরকারি কর্মী। আরও পড়ুন-Brazilian President Jair Bolsonaro: কোভিড পজিটিভ ব্রাজিলের প্রেসিডেন্টকে উট পাখির কামড়, দেখুন ছবি

এদিকে এক কর্মীর শরীরে মারণ ভাইরাসের জীবাণু মেলায় আজ বৃহস্পতিবার থেকে ১০ দিনের জন্য বন্ধ হয়ে যাচ্ছে রাজ্যের বিধানসভা। আক্রান্ত কর্মী একজন টাইপিস্ট। সংবাদ মাধ্যমকে এই তথ্য দিয়েছেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানান, কয়েকদিন ধরেই তাঁর শরীরে জ্বর, সর্দি, কাশির মতো নানান উপসর্গ দেখা যাচ্ছিল। নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর বুধবার রাতের দিকে বিধানসভা বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে করোনা আক্রান্ত ওই কর্মীর সংস্পর্শে আসা ২২ জন কর্মীকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। আগামী ২৭ জুলাই পুনরায় চালু হবে বিধানসভা।