জেলায় মমতা (Mamata Banerjee)। শহরে শুভেন্দু (Suvendu Adhikary)। ১৮ জানুয়ারি সকাল থেকেই রাজ্য রাজনীতি ছিল সরগরম। কলকাতায় মুদিয়ালির কাছে শুভেন্দু অধিকারী এবং দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh) মিছিল ঘিরে সকাল থেকেই বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়। ইট-পাটকেল ছোঁড়ার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খায় পুলিশও। ২১-র নির্বাচনে নন্দীগ্রাম (Nandigram) থেকে প্রার্থী হিসেবে ভোটে লড়বেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এই ঘোষণার পরই মমতার পাড়া, রাসবিহারী অ্যাভিনিউয়ের মঞ্চে তৃণমূল সুপ্রিমোকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী। এদিন টালিগঞ্জ থেকে মিছিল শুরু হয়। শেষ হয় রাসবিহারী মোড়ে। সেখানেই মঞ্চে দাঁড়িয়ে মমতা ব্যানার্জি বলেন, "শুনুন মাননীয়া। আপনাকে যদি হাফ লাখে ভোটে না হারাতে পারি নন্দীগ্রামে। তাহলে রাজনীতি ছেড়ে দেব।" এদিন নন্দীগ্রামের সভায় ওই কেন্দ্রে দাঁড়ানোর ইচ্ছে প্রকাশ করেন মমতা ব্যানার্জি। ভবানীপুরে কে দাঁড়াবে, সেই বিষয়টি উহ্য রাখলেও নিজেও দাঁড়াতে পারেন ওই কেন্দ্র থেকে মমতা, সেটির ইঙ্গিত দিয়ে রাখেন তিনি। নন্দীগ্রামের বিধায়ক ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী।