Gaganyaan Mission: 'গগনযান' মিশনের জন্য নিজস্ব স্যাটেলাইন কমিউনিকেশন সিস্টেম তৈরি করছে ISRO
ISRO (Photo Credits: IANS)

নতুন দিল্লি, ৯ জানুয়ারি: ২০২২ সালে মহাকাশযান পাঠাবে ভারত। গ্রাউন্ড স্টেশনের সঙ্গে গগনযানে (Gaganyaan) থাকা নভশ্চরদের (Astronauts) যোগাযোগ করা সহজ করার জন্য ইসরো (ISRO) নিজস্ব উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থা (Satellite Communication System) তৈরি করছে। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, এই যোগাযোগ ব্যবস্থা ব্যবহার করে ইসরো প্রতি নিয়ত মহাকাশে থাকা ভারতীয় মহাকাশচারীদের পর্যবেক্ষণ ও তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবে। ২০২২ সালের মধ্যে ভারতের মহাকাশ মিশনের অনেক আগেই এই উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থা তৈরি করা হবে।

প্রতিবেদনে ইসরোর চেয়ারম্যান কে সিভানকে (K Sivan) উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে যে, ইন্ডিয়ান ডেটা রিলে স্যাটেলাইট সিস্টেম (IDRSS) দ্বারা গঠিত দুটি জিও স্যাটেলাইট মহাকাশ যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করবে। এটি ভারতের গ্রাউন্ড স্টেশনের সঙ্গে মহাকাশে থাকা মহাকাশচারীদের কথা বলতে সাহায্য করবে। সিভান আরও বলেছেন যে এই বছরেই গগনযান টেস্টফ্লাইটের প্রথম জিও স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণ করা হবে। আরও পড়ুন:  Mysterious Radio Signals From Distant Galaxy: পৃথিবীর কাছাকাছি এলিয়েন? ৫০০ কোটি আলোকবর্ষ দূরের গ্যালাক্সি থেকে আসছে রেডিও সংকেত

প্রতিবেদনে আরও যোগ করা হয়েছে যে ২০২১ সালে দ্বিতীয় মানবহীন টেস্টফ্লাইটের আগে দ্বিতীয় স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণ করা হবে। কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট সম্পর্কে বিশদ বিবরণ দিয়ে সিভান বলেন, ৩৬ হাজার কিলোমিটারে জিওস্টেশনারি অরবিটে উপগ্রহগুলি স্থাপন করা হবে। এর ফলে কোনও সময় নষ্ট না করে মহাকাশচারীদের সঙ্গে পৃথিবীতে থাকা গ্রাউন্ড স্টেশনের ক্রমাগত যোগাযোগে করা যাবে।

ভারতীয় বায়ুসেনার চার পাইলটকে ২০২২ সালের মধ্যে পৃথিবীর কক্ষপথের আশেপাশে ভারতের প্রথম পরিচালিত মিশন গগানায়নের জন্য নির্বাচিত করা হয়েছে। তাঁরা প্রত্যেকেই বায়ুসেনার বিভিন্ন বিভাগে রয়েছেন। মহাকাশযাত্রার আগে এই চার নভশ্চরকে ভাল করে শিখিয়ে পড়িয়ে নেওয়া হবে। তার জন্য শুরু হয়েছে প্রশিক্ষণ পর্ব। দেশের বিজ্ঞানীরা তো বটেই, এই চার নভশ্চরকে বিশেষভাবে প্রশিক্ষণ দেবেন রাশিয়ার মহাকাশবিজ্ঞানীরা। তার জন্য জানুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহে রাশিয়ায় উড়ে যাবেন বায়ুসেনার ওই চার অফিসার।