Vallabhacharya Jayanti 2024: বল্লভাচার্য জয়ন্তী কবে? জেনে নিন কিভাবে শ্রী বল্লভ হলেন শ্রী বল্লভাচার্য...

বৈশাখ কৃষ্ণপক্ষ একাদশীর দিনে পালন করা হয় শ্রী বল্লভাচার্যের জন্মবার্ষিকী। শ্রী বল্লভাচার্য ছিলেন একজন ভারতীয় দার্শনিক। তিনি ব্রজে শ্রীকৃষ্ণ ঘোষণা চুক্তি এবং বৈষ্ণব ধর্মের অদ্বৈত দর্শন স্থাপন করেছিলেন। মান্যতা রয়েছে, গোবর্ধন পর্বতে স্বয়ং ভগবান কৃষ্ণের দর্শন পেয়েছিলেন শ্রী বল্লভাচার্য, তাই উপাসকরা ধুমধাম করে পালন করে বল্লভাচার্য জয়ন্তী। মান্যতা রয়েছে, বল্লভাচার্য একমাত্র সাধক ছিলেন যাঁকে শ্রীনাথজি রূপে দর্শন দিয়েছিলেন ভগবান শ্রী কৃষ্ণ। শ্রী বল্লভাচার্য জির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে পুজো করা হয় ভগবান শ্রী কৃষ্ণের।

পুষ্টি মার্গের প্রবর্তক শ্রী বল্লভাচার্য ১৪৭৯ খ্রিস্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন দক্ষিণ ভারতের কাঙ্করওয়াল গ্রামে। তাঁকে মৃত ভেবে তার বাবা-মা পরিত্যাগ করলেও পরে শ্রীনাথ জি তাঁর মাতার স্বপ্নে এসে বলেন যে তিনি বেঁচে আছেন। এরপর অভিভাবকরা নির্ধারিত জায়গায় গিয়ে দেখেন আগুনের গর্তে রয়েছেন তিনি এবং অগ্নিকুণ্ডের চারপাশে বসে ছিলেন ৭ অঘাধ সাধু। ২০২৪ সালে শ্রী বল্লভাচার্যের ৫৪৫ তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হবে ৪ মে। শ্রী কৃষ্ণের শ্রীনাথ রূপের পুজো শুরু করেছিলেন শ্রী বল্লভাচার্য, তাই তাঁর জন্মবার্ষিকীর দিনে শ্রীনাথ জির মন্দিরগুলিতে পালন করা হয় একটি দুর্দান্ত উৎসব। এই দিনে তামিলনাড়ু, উত্তরপ্রদেশ সহ সমগ্র মহারাষ্ট্রে শ্রীনাথ জির মন্দিরগুলিতে বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠানের সঙ্গে পুজো করা হয়।

একবার বিজয়নগরে, মাধব ও বৈষ্ণবদের মধ্যে বিতর্কে যোগদানের সিদ্ধান্ত নেন শ্রী বল্লভ। বিতর্কের বিষয় ছিল, 'ঈশ্বর কি দ্বৈতবাদী নাকি অদ্বৈতবাদী?' এই বিতর্ক চলে একটানা ২৭ দিন। মাত্র ১১ বছর বয়সে, রাজার সামনে তার মতামত প্রকাশ করেন শ্রী বল্লভ। এরপর, রাজা কণক দিয়ে অভিষিক্ত করে সম্মান করেছিলেন শ্রী বল্লভকে। এরপরেই 'আচার্য' ও 'জগদ্গুরু' উপাধি লাভ করেন তিনি। রাজা ১০০ মণ সোনার পাত্র উপহার দিলে, তা প্রত্যাখ্যান করে দরিদ্রদের মধ্যে বিতরণ করার অনুরোধ করেন যুবক শ্রী বল্লভ। ১৫৩০ সালে, ত্যাগের ব্রত গ্রহণের পর কাশীর হনুমান ঘাটে যান শ্রী বল্লভাচার্য। শেষ মুহুর্তে গঙ্গা নদীতে জল সমাধি গ্রহণ করেছিলেন শ্রী বল্লভাচার্য।