Goddess Lakshmi On Notes: নোটে লক্ষ্মী ঠাকুরের ছবি থাকলেই ভারতীয় অর্থনীতির দৈন্যদশা ঘুচবে, দাবি বিজেপি সাংসদের
সুব্রমনিয়ান স্বামীর ফাইল ছবি (Photo Credits: ANI)

খাণ্ডোয়া, ১৬ জানুয়ারি: স্বামী বিবেকানন্দ ব্যাখ্যানমালা শীর্ষ আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে ভারতীয় নোটে লক্ষ্মীঠাকুরের ছবির (Goddess Lakshmi) দাবি করলেন বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মনিয়ান স্বামী (Subramanian Swamy)। তাঁর মতে দীর্ঘদিন ধরে ভারতীয় অর্থনীতিতে মন্দার প্রকোপ চলছে। এই অবস্থায় যদি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজে দায়িত্ব নিয়ে ভারতীয় নোটে ঐশ্বর্যের দেবী লক্ষ্মীর ছবি ছাপানোর ব্যবস্থা করেন তাহলে দেশের অর্থনীতির দৈন্যদশা ঘুচে যায়। সাংবাদিকরা বিজেপি সাংসদের কাছে ইন্দোনেশিয়ান নোটে গণেশ ঠাকুরের ছবির উপস্থিতি নিয়ে জানতে চেয়েছিলেন তখনই একথা বলেন তিনি। আরও বলেন, ভগবান গণেশ বাধা-বিঘ্ন দূর করে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এনিয়ে বিশদ বলতে পারবেন বলেই তিনি জানান।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন প্রসঙ্গ উঠলে সুব্রহ্মনিয়ান স্বামী বলেন, “কংগ্রেস ও মহাত্মা গান্ধী এটা চেয়েছিলেন। ২০০৩ সালে সংসদে মনমোহন সিং-ও এই সিএএ-র জন্যই অনুরোধ করেছিলেন। আমরা এটা করে দেখিয়েছি। এখন ওরা তা মানতে চাইছে না। বলছে, আমরা পাকিস্তানের মুসলিমদের প্রতি অবিচার করেছি। কী অবিচার হয়েছে? পাকিস্তানের মুসলিমরা এখানে আসতে চায় না। আমরা তাঁদের জোর করতে পারি না।” এর আগে স্বামী বলেন, মুসলিম ও হিন্দুর ডিএনএ একই যেমন ব্রাহ্মণ ও দিলেত ডিএনএ-র মধ্য়ে কোনওরকম পার্থক্য নেই। দেশের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার দেখে তাঁর মন্তব্য, ২০২৫ সালের মধ্যে জনসংখ্যার বিচারে চিনকে চাপিয়ে যাবে ভারত। আরও পড়ুন-China Isolated On Kashmir At UN Security Council: চিনের বন্ধুতাই সার, রাষ্ট্রপুঞ্জের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে পাত্তাই পেল না পাকিস্তানের কাশ্মীর ইস্যু

আর ভারতীয় টাকায় লক্ষ্মী ঠাকুরের উপস্থিতির প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, “আমি এর পক্ষে। যদিও বলব যে নোটের উপর দেবী লক্ষ্মীর ছবি থাকলে ভারতীয় অর্থনীতির অবস্থা অনেকটাই উন্নত হবে। এতে কারও খারাপ লাগার কথা নয়।”