Imran Khan Tweets Fake Video: ভারতের সংখ্যালঘুদের ওপর অত্যাচার দেখাতে বাংলাদেশের ভিডিও শেয়ার করে নিন্দার মুখে ইমরান খান
ইমরান খানের শেয়ার করা ভিডিওর অংশ (Photo Credits: Twitter)

ইসলামাবাদ, ৪ জানুয়ারি: ভারতকে বিপাকে ফেলতে গিয়ে নিজেই ফাঁদে পড়লেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী (Pakistan PM) ইমরান খান (Imran Khan)। সাত বছরের পুরনো বাংলাদেশের (Bangladesh) একটি ভিডিওকে ভারতের বলে দাবি করে প্রতিবেশী রাষ্ট্রকে অস্বস্তিতে ফেলতেই এটি শেয়ার করেন তিনি। পোস্ট করার সঙ্গে সঙ্গে সরব হয়ে ওঠেন নেটিজেনরা। তাঁরা পাল্টা দাবি করেন তিনি ভুয়ো ভিডিও (Fake Video) পোস্ট করেছেন।

বাংলাদেশের পুরনো ভিডিওকে উত্তরপ্রদেশের বলে তিনি পোস্ট করেছেন বলে দাবি করেন নেটিজেনরা। প্রবল ট্রোলের (Trolled) শিকার হয়ে পোস্ট করার দু’ঘণ্টার মধ্যেই ওই টুইট সরিয়ে দেন তিনি। এর ফলে তিনি প্রতিবেশী দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন বলে মনে করেছেন কূটনীতিকরা। শুক্রবার সন্ধ্যায় ৭টা ৪৪ মিনিটে নিজের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে একটি ভিডিও পোস্ট করে ইমরান খান দাবি করেন, যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যে এ ভাবেই মুসলিমদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। এভাবেই মুসলিমদের দেশছাড়া করছে নরেন্দ্র মোদি সরকার। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নীরবতা মোদি সরকারকে সংখ্যালঘুদের প্রতি আরও বৈষম্যমূলক আচরণ করতে প্ররোচিত করছে বলেও দাবি করেন তিনি। আরও পড়ুন, পাকিস্তানে নানকানা সাহিবের গুরুদ্বারে পড়ছে পাথর, শিখ ধর্মাবলম্বীদের উৎখাত করতে পথে বিক্ষুব্ধ জনতা(দেখুন ভিডিও)

ইমরান খান যে ভিডিওটি শেয়ার করেছেন তাতে দেখা যাচ্ছে, পুলিশের উর্দিধারীরা কী ভাবে একের পর এক সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষজনের উপর লাঠিচার্জ করছে। টুইটারে ওই ভিডিওটি শেয়ার করা মাত্র তা হোয়াট্‌সঅ্যাপ এবং ফেসবুকের মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ে। নেটিজেনরা ওই ভিডিও দেখে লক্ষ্য করেন উর্দিধারীরা বাংলাদেশের র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব)-এর সদস্য। তা কমেন্ট করেও জানান তারপর সেই ভিডিওটি সরিয়ে নেন পাক প্রধানমন্ত্রী।