Bihar: পুলিশ হেফাজতে স্বামী এবং নাবালিকা স্ত্রীকে পিটিয়ে খুন! থানা ঘেরাও করে আগুন জ্বালালেন ক্ষিপ্ত গ্রামবাসী
Bihar Mob Sets Police Station On Fire (Photo Credits: X)

আরারিয়া, ১৮ মেঃ থানার মধ্যে এক ব্যক্তি এবং তাঁর নাবালিকা স্ত্রীর আত্মহত্যা করার ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পরে থানায় আগুন জ্বালিয়ে দিলেন ক্ষিপ্ত গ্রামবাসী। আত্মহত্যার তত্ত্ব উড়িয়ে দিয়ে গ্রামবাসীর অভিযোগ, থানার মধ্যে পুলিশের হাতে মার খেয়ে মৃত্যু হয়েছে দম্পতির। ক্ষুব্ধ গ্রামবাসী থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখায়। স্লোগান তোলে। পুলিশকর্মীদের লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছোঁড়ে। এখানেই না থেমে থানায় আগুন পর্যন্ত লাগিয়ে দেয় উত্তেজিত জনতা। ক্ষিপ্ত গ্রামবাসীদের রুখতে এবং আত্মরক্ষার স্বার্থে গুলি চালাতে বাধ্য হয় পুলিশ। ঘটনায় ৯ জন পুলিশকর্মী এবং দুজন স্থানীয়ের আহত হওয়ার খবর মিলেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বিহারের (Bihar) আরারিয়া জেলার তারাবাড়ি গ্রামে।

ঘটনার সূত্রপাত দিন কয়েক আগে গ্রামের এক ব্যাক্তির তাঁর নাবালিকা শালিকে বিয়ে করাকে কেন্দ্র করে। স্ত্রী মারা যাওয়ার পর ১৪ বছরের শালিকে দিন দুই আগেই বিয়ে করেন ওই ব্যক্তি। নাবালিকা তরুণীকে বিবাহ করার অভিযোগে স্বামী-স্ত্রী দুজনকেই পুলিশ তুলে নিয়ে যায়। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পুলিশ হেফাজতে থাকাকালীন আত্মঘাতী হন নবদম্পতি। সেই খবর গ্রামবাসীর কাছে পৌঁছতেই চটে যান তাঁরা।

হেফাজতে স্বামী-স্ত্রীকে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে অভিযোগ তুলে থানার বাইরে বিক্ষোভ শুরু করে উত্তেজিত গ্রামবাসী। পুলিশকর্মীদের উদ্দেশ্যে ঢিল ছোঁড়ে তাঁরা। এরপরেই থানায় আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। পরিস্থিত ক্রমেই হাতের বাইরে চলে যায়। বিশৃঙ্খলায় ৯ জন পুলিশ চোট পেয়েছেন বলে খবর। গ্রামবাসীর তাণ্ডব রুখতে বিভিন্ন থানা থেকে ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে নিয়ে আসা হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ ছয় রাউন্ড গুলি চালিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। হাতে এবং পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে দুই বিক্ষোভকারী আহত হয়েছে। বিক্ষভকারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।