Assam CM Sarbananada Sonowal: ‘আমাদের সামাজিক সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের কথা মনে রেখেই অসমের বাসিন্দারা শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখবেন’, অবশেষে আবেদন সর্বানন্দ সনোয়ালের
সর্বানন্দ সনোয়াল (Photo Credit: ANI)

গুয়াহাটি, ১২ ডিসেম্বর: নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতায় বিক্ষোভের আগুনে জ্বলছে সমগ্র অসম। প্রধানমন্ত্রীর টুইটের পর এবার রাজ্যবাসীকে শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানালেন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল (Assam CM Sarbananada Sonowal)। তিনি বলেন, সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও আধ্যাত্মিক ঐতিহ্য। আমার দৃঢ় বিশ্বাস যে অসমবাসীরা সবসময় শান্তি বজায় রাখবে। লোকসভা ও রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পর থেকেই অসনের বিভিন্ন সংগঠন প্রতিবাদে মুখর হয়েছে গত দুটো তিনটে দিন ধরে কার্যত বনধ চলছে অসমে। ইন্টারনেট বন্ধ, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষার সূচি বদল হয়েছে। বিক্ষোভকারী সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুর করে টায়ার জ্বালিয়ে প্রতিবাদ জারি রেখেছে।

এদিন সকালেই টুইট বার্তায় অশান্ত অসমকে শান্ত করার চেষ্টা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি টুইটে লিখেছেন, ৬ ধারা অনুযায়ী অসমবাসীর রাজনৈতিক, ভাষা, সংস্কৃতি ও ভূমির অধিকার রক্ষায় সাংবিধানির যে রক্ষাকবচ রয়েছে, তা রক্ষায় সম্পূর্ণরূপে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ কেন্দ্রীয় সরকার ও আমি। অসমিয়াদের অধিকার কেড়ে নেওয়া হবে না। অসমে আমার ভাই ও বোনেদের আশ্বাস দিয়ে জানাতে চাই যে, CAB পাশ হওয়ায় তাঁদের চিন্তার কোনও কারণ নেই। কেউ আপনাদের অধিকার, অনন্য পরিচয় ও সুন্দর সংস্কৃতিকে কেড়ে নেবে না। সেগুলি চলতেই থাকবে এবং আরও ফুলে ফেঁপে উঠবে।” এদিকে টুইটারে যখন অসম নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী তখন নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (Citizenship Amendment Bill, 2019) নিয়ে বিক্ষোভের জেরে অসমের (Assam) ১০টি জেলায় বন্ধ ইন্টারনেট পরিষেবা (Internet)।  প্রথমে আজ সন্ধে পর্যন্ত ইন্টারনেট বন্ধ থাকার কথা থাকলেও পরিস্থিতির ভয়াবহতার কথা বিবেচনা করে আগামী বেশ কয়েকদিনের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হল ইন্টারনেট। একই অবস্থা ত্রিপুরাতেও। দু জায়গাতেই নেমেছে সেনা। চলছে ফ্ল্যাগ মার্চ। তাই প্রধানমন্ত্রীর টুইট যে অসমের বাসিন্দারা দেখতে পাবেন না তানিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। আরও পড়ুন-Guwahati Police Commissioner Removed: নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বিরোধের জের, গুয়াহাটির পুলিশ কমিশনারকে বদলি করল রাজ্যপ্রশাসন

নাগরিকত্ব বিলের বিরোধিতায় অশান্ত অসমে (Assam) উত্তরোত্তর বাড়ছে সমস্যা। কয়েক কম্পানি সেনা নামিয়েও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা যাচ্ছে না। বিক্ষোভ থামাতে কখনও কখনও শূন্যে গুলি ছুঁড়তে হচ্ছে পুলিশকে। এবার সেই পুলিশি আক্রমণের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলল বিক্ষোভকারীরা। বিতর্ক এড়াতে তড়িঘড়ি সরিয়ে দেওয়া হল গুয়াহাটির পুলিশ কমিশনার দীপক কুমারকে (City police chief Deepak Kumar)। তাঁর জায়গায় কমিশনার পদে বহাল হয়েছেন মুন্না প্রসাদ গুপ্তা।