আফগানিস্তানে আইএস দমনে ভারত অংশ নিক, এই প্রথম বললেন ডোনাল্ড ট্রাম্প
মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প(Photo Credit: getty images)

ওয়াশিংটন ডিসি, ২২ আগস্ট: এবার আফগানিস্তান থেকে সন্ত্রাসের কালো ছায়া মুছে ফেলতে ভারতকে পাশে চাইল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজের মুখেই সেকথা বললেন বুধবার। তিনি বলেন, আফগানিস্তান থেকে আইএসের মতো জঙ্গি গোষ্ঠীকে তাড়াতে হলে ভারত, রাশিয়া তুরস্ক, ইরাক, ইরান, পাকিস্তানকেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সন্ত্রাস বিরোধী লড়াই লড়তে হবে। সম্ভবত এই প্রথম আফগানিস্তানে কোনও সন্ত্রাস বিরোধী পরিকল্পনায় ভারতের সহযোগিতা চাইলেন ট্রাম্প। দীর্ঘ ১৮ বছর পর আফগানিস্তান থেকে সেনা সরাচ্ছে আমেরিকা। কিছুদিন আগে সন্ত্রাস বিধ্বস্ত আফগানদের সার্বিক উন্নয়নে ভারতের যোগ দান আশা করলেও সন্ত্রাস দমনে নয়াদিল্লিকে কখনওই পাশে চায়নি ওয়াশিংটন ডিসি। এবার সেই ধারণাকেই আমূল বদলে দেওয়ার চেষ্টা করলেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি।

আফগানিস্তান প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে এদিন ডোনাল্ড ট্রাম বলেন, ভারত সেখানে থাকলেও যুদ্ধ করেনি। আমরা সেখান সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়ে গিয়েছি। দক্ষিণ এশিয়ার এক স্ট্র্যাটেজি অনুযায়ী ২০১৭-তে ঠিক হয় যে আফগানিস্তানের মানুষ যু্দ্ধ ও সন্ত্রাস কবলিত হয়ে থাকতে থাকতে সব হারিয়েছে। এখন মূল স্রোতে তাদের ফিরতে হলে সব নতুন করে সুরু করা প্রয়োজন। এই কাজেই ভারত সহযোগিতা করবে। আফগানদের সার্বিক পুনর্বাসন ও উন্নয়নই হবে ভারতের মূল কাজ। তবে এই বক্তব্যে কোনওভাবেই একটা বিষয় স্পষ্ট ছিল না যে মার্কিন যুক্ত রাষ্ট্র আফগানদের জন্যা ভারতের কাছে ঠিক কোন ধরনের সহযোগিতা চাইছে। উন্নয়নে অংশীদারী, নাকি সন্ত্রাসের কালো ছায়া ভারত যুদ্ধ করুক। আরও পড়ুন-Article 370 Move:নিরাপত্তা পরিষদের তিরস্কার গায়ে মাখলেন না ইমরান খান, কাশ্মীর ইস্যুতে এবার আন্তর্জাতিক আদালতে যাচ্ছে পাকিস্তান

এই মুহূর্তে তালিবান শাসিত আফগানিস্তানে সন্ত্রাসের মুক্তাঞ্চল চালু করতে উঠে পড়ে লেগেছে আইএস। য়তই তার আঁতুড় ঘর ইরাক সিরিয়া হোক না কেন, এখন আফগানিস্তানে নতুন মাটি পেতে বদ্ধ পরিকর এই জঙ্গি গোষ্ঠী। ইতিমধ্যে তারা কাজও শুরু করে দিয়েছে। কয়েকদিন আগেই আত্মঘাতী বোমা হামলায় আফগানিস্তানে এক সঙ্গে ৬৩জনের মৃত্যু হয়েছে। এই নাশকতার পিছনে যে আইএসের হাত আছে তা স্পষ্ট। আফগানিস্তান থেকে সেনা সরানোর সময় এবার আইএস দমনে ভারতের অংশগ্রহণ আশা করল আমেরিকা।