Govt Appointed Gita Mahali As Home Guard: গীতা মাহালিকে চাকরির নিয়োগপত্র সরকারের, ৩ বছর আগে বাংলাসফরে এই পরিবারেই মধ্যাহ্নভোজ সারেন অমিত শাহ
গীতা মাহালি। Photo Source: Ani

দার্জিলিং, ৫ নভেম্বর: ২১-র লক্ষ্যে (2021 West Bengal Assembly Election) বাঁকুড়ায় (Bankura) জনসভা করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। মধ্যাহ্নভোজ সারবেন বাঁকুড়ার আন্ধারথোল পঞ্চায়েতের চতুরডিহি গ্রামের বিভীষণ হাঁসদার বাড়িতে। আদিবাসী রীতি ও পরম্পরা মেনে কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে আপ্যায়ন জানাতে তৈরি বাঁকুড়ার আদিবাসী গ্রাম চতুরডিহিও। কিন্তু গীতা মহালিকে (Gita Mahali) কী চেনেন বিভীষণ হাঁসদা? ৩ বছর আগে ফ্ল্যাসব্যাকে ফিরে যাওয়া যাক। সালটা ছিল ২০১৭। অমিত শাহ উত্তরবঙ্গ (Amit Shah At North Bengal) সফলে গীতা মাহালির বাড়িতে সারেন মধ্য়াহ্নভোজ। সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে উঠে আসেন গীতা মাহালি। তবে এই সেলেব্রিটির তকমাটা ছিল একদিনের। গীতার পরিবারের অভিযোগ ছিল, অমিত শাহ চলে যাওয়ার পর তৃণমূলের লোকজন ছাড়া আর কেউ তাদের সুখ-দু:খ, অভাব-অনটনের কথা শুনতে আসেননি। তিন বছর পর অমিত শাহের বাংলা সফরের দিনই সেই গীতা মাহালিকে রাজ্য সরকারের তরফে দেওয়া হল স্পেশাল হোমগার্ডের চাকরি।

সূত্রের খবর, একদিকে যখন 'তৃণমূলকে মাটি থেকে উপড়ে' ফেলার হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন অমিত শাহ। অন্যদিকে দার্জিলিংয়ে সেই গীতা মাহালির বাড়িতে পৌঁছে গেলেন দার্জিলিংয়ের জেলা প্রশাসক রঞ্জন সরকার। গীতা মহালির হাতে তুলে দিলেন নকশালবাড়ি পুলিশ স্টেশনের হোমগার্ডের চাকরির নিয়োগপত্র। চাকরির সুযোগ পেতেই বেজায় খুশি গীতা মাহালি। তিনি বলেন, "আমি ভীষণ খুশি, আশা করি এতদিন আমাদের সংসারে সুখ-শান্তি ফিরবে।" মাহালি পরিবারকে শুভেচ্ছা জানিয়ে শিলিগুড়ির জেলা প্রশাসক বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দেগে বলেন, 'দলিতদের নিয়ে রাজনীতি করার চেষ্টা করেছিল গেরুয়া শিবির।' পড়ুন: Amit Shah: বাঁকুড়ায় এসে 'মমতা সরকারের মৃত্যুঘণ্টা বেজে গেছে' হুঁশিয়ারি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের

শিলিগুড়ি থেকে ৩৫ কিমি ভিতরে নকশালবাড়িতে এই দলিত দম্পতির ঘরেই পাত পেড়ে খেয়েছিলেন অমিত শাহ। এরপর এই মাহালি দম্পতিকে নিয়ে বিজেপি-তৃণমূলে রীতিমত দড়ি টানাটানি হয়। অবশেষে গৌতম দেবের উপস্থিতিতে তৃণমূলের পার্টি অফিসে অমিত শাহের উত্তরবঙ্গ সফরের দু'দিনের মধ্যেই তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন গীতা এবং রাজু মাহালি।

গীতা মাহালির বাড়ি থেকে বেরোনোর পর সংবাদমাধ্যমের উদ্দেশে রঞ্জন সরকার বলেন, বিজেপি এই পরিবারটিকে বছরের পর বছর ধরে 'মিথ্যে আশ্বাস' দিয়ে আসছে। অমিত শাহ মাহালি পরিবারের বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর 'গেরুয়া শিবিরের কেউ সেই বাড়িতে প্রবেশ করেনি।' এমনকী, লকডাউনে এই পরিবার কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলেন, সেই সময়ও দলের কোনও ব্যক্তি এগিয়ে আসেননি।