Kolkata: মদ্যপ তরুণীর চিরকুটে মুম্বইগামী বিমানে বোমাতঙ্ক, দমদমে জরুরি অবতরণ
গ্রেপ্তারির প্রতীকী ছবি (Photo Credit: Pixabay)

কলকাতা, ১৩ জানুয়ারি: শরীরের মধ্যে বোমা লুকিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। বিমান তখন মাঝ আকাশে, এমন সময় চিরকুট পড়ে বিষয়টি জানতে পারলেন পাইলট। সঙ্গে সঙ্গেই এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলে যোগাযোগ করে জরুরি অবতরণের বিষয়টি জানান। রাত দশটা বেজে ১০ মিনিটে উড়ে ফের ১১টা বেজি ৩০ মিনিটে অবতরণ করে সেই দমদম বিমানবন্দরেই । শনিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে এয়ার এশিয়ার (Air Asia) মুম্বইগামী বিমানে। বিমানে থাকা এক মহিলা যাত্রী বিমান সেবিকাকে চিরকুট দেন। সেটি পাইলটকে দিতেই তিনি পড়ে জানতে পারেন ওই মহিলা গায়ে বোমা আছে। বোমাতঙ্কের জেরেই আতঙ্ক ছড়ায়। বিমানটি জরুরি অবতরণের পর ১১৪জন যাত্রীকে নিরাপদে সরিয়ে আনা হয়।

তারপর বোমা সঙ্গে থাকা তরুণীকে তল্লাশি চালিয়েও কোনও কিছুই পায়নি সিআরপিএফ। পরে তাঁকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ওই তরুণীর পরিচয় জানা গিয়েছে। তিনি সল্টলেকের বাসিন্দা। বাবা ব্যবসায়ী। বছর তেইশের তরুণী বিবিএ-র ছাত্রী। তাঁর হবু স্বামী থাকেন মুম্বইতে। সেই যুবকের বাবা অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তাঁকে দেখতেই মুম্বই যাচ্ছিলেন ওই তরুণী। শনিবার তিনি বাড়ি থেকে রাত আটটায় বেরিয়েছেন বলে জানিয়েছে তাঁর পরিবার। সেখান থেকে পুলিশের অনুমান, হয় গাড়িতে নয়তো এয়ারপোর্টে এসে মদ্যপান করেন ওই তরুণী। আরও পড়ুন-West Bengal Weather Update: ভিলেন পশ্চিমী ঝঞ্ঝা, সংক্রান্তিতে উধাও হতে পারে শীত

পুলিশ জানিয়েছে, গোটা বিমানটি রানওয়ে থেকে আলাদা জায়গায় রেখে ভাল করে তল্লাশি চালানো হয়। কোথাও কোনওরকম বোমার সন্ধান মেলেনি। তারপর ফের মুম্বইয়ের উদ্দেশে বিমানটিকে রওনা করিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু সেই তরুণী কলকাতাতেই পুলিশের হেফাজতে থেকে যান। তাঁর কাছে কোনও বোমা মেলেনি। অতিরিক্ত মদ্যপানের কারণেই যে ভুল বকছিলেন কি না তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। রবিবার তরুণঈকে বারাকপুর আদালতে তোলা হলে ধৃতের পুলিশ হেফাজত হয়েছে। কেন তরুণী এমন কথা বললেন তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।