WB Assembly Elections 2021:  ‘যখন মানুষকে হয়রান করবেন, তখন মনে করিয়ে দেব স্যার’, বহিরাগত প্রশ্নে মোদিকে খোঁচা মহুয়ার
সংসদে মহুয়া মৈত্র। ফাইল ছবি। (Image Credits: YouTube/AITC)

নতুন দিল্লি, ২৫ মার্চ: পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের (WB Assembly Elections 2021) প্রথম দফা ভোটের আর মাত্র একদিন বাকি। এর আগে রাজ্যজুড়ে চলছে শাসক ও বিরোধী শিবিরের জোরদার প্রচার। পায়ে প্লাস্টার নিয়েই বাঁকুড়া, পুরুলিয়া পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রামে নির্বাচনী জনসভায় ঝড় তুলেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর রাজ্যে গেরুয়া ঝড়কে প্রতিষ্ঠিত করতে কেন্দ্রের বিজেপি নেতৃত্বের আনাগোনা বেড়েছে। নরেন্দ্র মোদি এক দিন বাদ একদিন রাজ্যে পরচারে আসছেন। তালিকায় রেয়েছেন অমিত শাহ, জেপি নাড্ডা, রাজনাথ সিং, যোগী আদিত্যনাথ, স্মৃতি ইরানি-সহ অন্যান্য নেতারা। বিজেপি যেমন তৃণমূল সরকারকে বিঁধতে ছাড়ছে না। তেমনই বহিরাগত প্রশ্নে মোদি বাহিনীকে কটাক্ষ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার সেই কটাক্ষের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কোনও ভারতীয়ই বহিরাগত নন।’ আরও পড়ুন-COVID-19 Surge in India: হোলিতে জারি হতে পারে জমায়েতের ওপর নিষেধাজ্ঞা, সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি

এদিকে করোনাকালের আগে এই বহিরাগত শব্দবন্ধকে ইস্যু করে এনআরসি নিয়ে তৎপরতা শুরু করেছিল কেন্দ্র। বিজেপি নেতারা দেশজুড়ে এনআরসি-র জুজু দেখিয়ে মানুষের মুখ বন্ধ করতে উদ্যত হয়। বুধবার কাঁথির জনসভায় প্রধানমন্ত্রীর বলা বক্তব্যকে তাঁর দিকে ব্যুমেরাং হিসেবে ব্যবহার করলেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মিত্র। এক টুইট বার্তায় তিনি লিখলেন, “আজ বাংলায় এসে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, কোনও ভারতীয়ই বহিরাগত নন, সকলেই ভারতমাতার সন্তান। বিষয়টা রেকর্ড হয়ে থাকল, স্যর। এখানে যাঁরা প্রজন্মের পর প্রজন্ম বাস করছেন, যাঁদের সন্তান এই মাটিতেই জন্ম নিয়েছে, তাঁদের যখন হয়রান করবেন, এই কথাটাই স্মরণ করিয়ে দেওয়া হবে আপনাকে।”

উল্লেখ্য, এনআরসি নিয়ে কেন্দ্রকে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে বার বার। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন(সিএএ) এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) নিয়ে দেশ জুড়ে বিক্ষোভের আঁচ ছড়িয়ে পড়েছিল। আওয়াজ উঠেছিল, ‘আমরা সকলেই ভারতীয়। আমরা কাগজ দেখাব না।ভোট বড় বালাই তাই এনআরসি প্রসঙ্গকেও এখন মাথায় আনছে না বিজেপি। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে বিষয়টি স্পষ্ট। এদিকে কাঁথির জনসভায় প্রধানমন্ত্রী সকলকেই ভারত মাতার সন্তান বলতেই পাল্টা বাক্যবাণে বিদ্ধ করেছেন কৃষ্ণনগরের সাংসদ। তিনি বলেন, ‘কাগজ নেহি দিখায়েঙ্গে’।