ICC World Cup 2019: দেশে ফিরলেই জবাবদিহির মুখে বিরাট কোহলি-রবী শাস্ত্রী, টিম ইন্ডিয়ার কোচ-ক্যাপ্টেনকে COA-কর্তাদের কাছে দিতে হবে যে তিনটি প্রশ্নের উত্তর
দেশে ফিরলেই ব্যর্থতার জবাবদিহি করতে হবে বিরাট-শাস্ত্রীকে (Photo Credits: Getty Images)

India World Cup Exit: বিশ্বকাপে ভাল খেলেও খালি হাতে দেশে ফিরছে ভারতীয় দল (Team India)। সেমিফাইনালে নিউ জিল্যান্ড (New Zeland)- র কাছে বিরাট কোহলি (Virat Kohli)-দের হারে ১৩০ কোটি ভারতীয়র স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে। একেবারে ফেভারিট হিসেবে নেমে লিগ পর্যায়ে চ্যাম্পিয়নের মত খেলেই শেষ চারে উঠেছিল টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু একটা হারে সব শেষ। সেমিফাইনালে কিউইদের বিরুদ্ধে ভারতের হারের পিছনে টিম ইন্ডিয়া-র দল নির্বাচন থেকে ব্যাটিং অর্ডার- বেশিরভাগ স্ট্র্যাটেজিই কাঠগড়ায় উঠেছিল।

হারের হতাশায় এখন টিম ইন্ডিয়ার ক্রিকেটাররা তাড়াতাড়ি দেশে ফিরতে চাইছেন। শোনা যাচ্ছে বিশ্বকাপ সেরে ১৪ জুলাই মুম্বইয়ে পা রাখবেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। তবে রবীন্দ্র জাদেজা, জশপ্রীত বুমরা আগে ফিরে পড়েছেন বলে খবর। টিম ইন্ডিয়া-র ক্রিকেটাররা মনে করছেন, একটুর জন্য তারা ইংল্যান্ডেই বিশ্বকাপটা ফেলে এলেন। আরও পড়ুন-মাঝ আকাশে গেল গেল রব, বিমানকে ঘিরে কমলা রঙের ওটা কী?

দেশে ফিরলেই ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও কোচ রবী শাস্ত্রী-কে নিয়ে আলোচনায় বসতে চলেছে সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত COA। বিনোদ রাইয়ের নেতৃত্বে এই মিটিং আগামী দিনে ভারতীয় ক্রিকেটের রোড ম্যাপ নিয়ে আলোচনা হবে। সিওএ-র এখন লক্ষ্য আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় হতে চলা টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। তার আগে জাতীয় নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদকে নিয়ে কোহলি-শাস্ত্রীদের সঙ্গে বসছেন COA কর্তারা। কবে এই মিটিং হবে সেটা ঠিক না হলেও কোহলি-শাস্ত্রীকে যে বেশ কিছু অপ্রিয় প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হবে সেটা নিশ্চিত।

কোহলি-শাস্ত্রী-র সঙ্গে আলোচনায় বিশ্বকাপে রিজার্ভে থাকা স্বত্ত্বেও ব্রাত্য আম্বাতি রায়াড়ু-র অবসর প্রসঙ্গ আসবে বলেও মনে করা হচ্ছে। দেখুন দেখে নেওয়া যাক যে তিনটি বড় প্রশ্ন কোহলিদের করা হবে সেগুলি হল--

১) ধোনিকে সেমিফাইনালে ব্যাটিং অর্ডারে সাত নম্বরে পাঠানো হল কেন

মার্টিন গুপ্তিলের থ্রো-তে ধোনি রান আউট না হলে হয়তো ফাইনালটা হতে যেত। ধোনি সেদিন হাফ সেঞ্চুরি করেন। কিন্তু সবার প্রশ্ন ছিল দীনেশ কার্তিক, হার্দিক পান্ডিয়ার আগে কেন কিউইদের বিরুদ্ধে কেন ধোনিকে নামানো হল না। ধোনি আগে নামলে হয়তো বিপর্যয় ঠেকানো যেত। কার্তিক একেবারেই টিকতে পারেননি। হার্দিক পান্ডিয়া, ঋষভ পন্থ সেট হওয়ার মুহূর্তে উইকেট ছুড়ে আসেন।

২) একই সঙ্গে তিনজন উইকেটকিপারকে খেলানো হল কেন

এমএস ধোনি, ঋষভ পন্থ, দীনেশ কার্তিক। একই সঙ্গে কেন তিনজন উইকেটকিপার খেলানো হল সেই প্রশ্নটা করা হবে কোহলি-শাস্ত্রীকে। মিডল অর্ডার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চলা সমস্যাটা কেন সমাধান করা গেল না সেটা নির্বাচকদেরও জিজ্ঞাসা করা হবে। কেদার যাদবের ফর্ম নিয়েও আলোচনা হবে।

৩) রায়াডু রিজার্ভ দলে থাকার পরেও দু জনের চোট পেয়ে ছিটকে যাওয়া

শিখর ধাওয়ান, বিজয় শঙ্কর। দুজন ছিটকে গেলেও রিজার্ভে থাকা আম্বাতি রায়াডুকে কেন নেওয়া হল না সেই প্রশ্নটাও করা হবে। চার নম্বরে খেলা বিজয় শঙ্করের পরিবর্তে রায়াডুকে নেওয়াই যেত। কিন্তু বিজয় শঙ্করের পরিবর্তে কেন ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়াল! সেই প্রশ্নটাও করা হবে।