ইন্দোরের পথে একেবেঁকে চলেছে লাল রঙের সাপ. আতঙ্কে দিশেহারা বাসিন্দারা
এই সেই সাপ(Photo Credit: Twitter)

ইন্দোর, ১৮ জুলাই: বর্ষাকাল শুরু হয়েছে অনেক দিন হল, কিন্তু মৌসুমী বায়ুর সক্রিয়তা এ রাজ্যে তেমন দেখা যাচ্ছে না। যারফলে গরমে নাভিশ্বাস উঠেছে দক্ষিণবঙ্গ বাসীর। ওদিকে উত্তরে বইছে শ্রাবণের ধারা। এই গরমে সামান্য ঠান্ডার খোঁজে সাধারণত ছায়ায় লুকিয়ে থাকে সাপের দল। রাস্তায় যদিও কচ্চিত বেরিয়ে পড়ে, তাতে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। সাপ তো সবাই চেনে অল্প বিস্তর। কিন্তু সেই সাপের রং যদি কোনওভাবে গাঢ় লালরঙা হয়, তাহলে তো ভয় লাগবেই। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরের দেবাস নাকা এলাকায়। লালরঙা সাপ (Red colour snakes) এঁকেবেঁকে পথ দিয়ে চলেছে, এই ছবি দেখেই আতঙ্কে সাড়া প্রত্যক্ষদর্শীরা। আরও পড়ুন- পাড়ার কাকুর যৌন অত্যাচারে কিশোরী আত্মঘাতী , ধর্ষককে সৌদি থেকে ধরলেন মহিলা আইপিএস

এমন টুকটুকে লাল রঙা সাপ দেখে স্থানীয়রাই জুলজিক্যাল মিউজিয়ামে খবর দেন। মিউজিয়ামের কর্মী ও আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই সাপ দেখতে বেশ ভিড় জেম গিয়েছে। ছোবলের ভয়ে কাছে যাওয়ার সাহস না হলেও দূর থেকেই মোবাইল ক্যামেরায় শাটার পড়ছে নামছে।অনেকে তো লাল সপারে সঙ্গে সেলফি তুলতে জুমও করছেন। সেই ভিড় ঠেলে জুলজিক্যাল কর্মীরা যতক্ষণে কাছে পৌঁছালেন ততক্ষণে সাপ বেচারা ঘাবড়ে গিয়েছে। আর সাপখানার গতিপ্রকৃতি দেখে শিউরে উঠেছেন মিউজিয়ামের কর্মীরা। তবে গায়ের রংটা যে আসল নয় তা বিলক্ষণ টের পেয়েছেন। কেননা ইন্দোরের সংশ্লিষ্ট এলাকায় বেশ কয়েকটি রঙের কারখান রয়েছেন। সাপটি কোনওভাবে সেই কারখানাতেই ঢুকে গিয়েছিল। তারপর রঙের বালতিতে পড়ে যেতে পারে, কিম্বা রং-সমেত বালতি সাপের গায়ে পড়তেও পারে। এরফলেই গোটা গা লাল হয়ে গিয়েছে।

মিউজিয়াম কর্মীরা জানিয়েছেন, লাল রঙের জন্য নয়। এমনিতেই সাপটি বেশ বিষাক্ত। এটি Russell’s Viper প্রজাতির সাপ। কামড়ালে নিশ্চিত মৃত্যু। এশিয়া মহাদেশে এই প্রজাতির সাপেদের দেখা মেলে। ভারতীয় উপমহাদেশের প্রায় সর্বত্র এই সাপ রয়েছে। তবে এদের গায়ের রং মোটেই লাল নয়। পরে সাপটিকে ধরে মিউজিয়ামে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা হয়।