Italy’s ‘10-Second Groping’ Rule: প্রতিবাদের নয়া ভাষা! স্তন চেপে ধরা ছবি পোস্ট করে সোশ্যাল মিডিয়াতে বিক্ষোভ ইটালির মহিলাদের; ভিডিয়ো
Photo Credits: Instagram@heycamilli

রোম: আদালতের ভুল সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে ইটালিতে নিজেদের স্তন চেপে ধরে (Italy’s ‘10-second groping’ rule) সোশ্যাল মিডিয়াতে ছবি পোস্ট করছেন মহিলারা। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে তুমুল বিতর্ক দেখা দিয়েছে সেখানে। প্রতিবাদের নতুন এই স্বরূপ দেখে চমকে উঠছেন সমাজের মাতব্বর ও রক্ষণশীলরা। অপ্রত্যাশিত স্পর্শ (unwanted touching) বা খারাপ উদ্দেশ্যে কাউকে ছোঁয়া ১০ সেকেন্ডের কম হলে সেটাকে যৌন নির্যাতন (sexual assault) ধরা হবে বলে আদালত রায় দেওয়ার পরেই এই বিক্ষোভ দানা বেঁধেছে।

২০২২ সালের এপ্রিল মাসে রোমের (Rome) একটি হাই স্কুলের সিঁড়ি দিয়ে বন্ধুর সঙ্গে ক্লাসে যাচ্ছিল ১৭ বছর বয়সী এক ছাত্রী। সেই সময় স্কুলের ৬৬ বছর বয়সী কেয়ারটেকার ওই ছাত্রীর প্যান্ট নামিয়ে তার অন্তর্বাসের উপর দিয়ে নিতম্ব চেপে ধরে। কিশোরীটি ঘুরে দাঁড়ালে বলে, 'আমি ইয়ার্কি মারছি'।

পরে এই বিষয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষ ও আন্তোনিও আভোলা নামে ওই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ছাত্রীটি। তার ভিত্তিতে ওই কেয়ারটেকারকে তিন বছরের জেলের সাজা শোনানো হয়। কেয়ারটেকার উচ্চ আদালতে আবেদন জানিয়ে বলে সে যৌন নির্যাতন করেনি বরং ইয়ার্কি মেরেছিল। আর আদালত ঘটনাটি ৫ থেকে ১০ সেকেন্ডের মতো সময় স্থায়ী হয়েছিল এই কারণ দেখিয়ে বিষয়টি যৌন নির্যাতনের মধ্যে ফেলতে চায়নি। বরং ইয়ার্কি বলেই মান্যতা দিয়ে অভিযুক্তকে মুক্তি দিয়েছিল। এই ঘটনা ঘটার পরেই ইটালির মহিলারা নিজেদের স্তন চেপে ধরার ছবি (filming themselves squeezing breasts ) সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন এই সিদ্ধান্তের। আরও এই প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন অনেক পুরুষরাও। আরও পড়ুন: PM Modi Meets Gerard Larcher: প্রধানমন্ত্রী মোদিকে উষ্ণ অভ্যর্থনা ফ্রান্স সেনেটের প্রেসিডেন্ট জেরার্ড লার্চারের, প্যারিসের ভিডিয়ো

দেখুন ভিডিয়ো:

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Camilla Pagliarosi (@heycamilli)