'Miracle Cure' for COVID-19?: অ্যামাজনে বিক্রি হচ্ছে ক্লোরিন ডাইঅক্সাইডের মতো বিপজ্জনক ব্লিচ, ‘অলৌকিক নিরাময়’ হিসেবে তাই খাচ্ছে মানুষ?
করোনাভাইরাসের নিরাময় (Photo Credits: Pixabay)

মহামারী করোনাভাইরাসে জর্জরিত বিশ্ব। সবাই এখন কোভিড-১৯ প্রতিষেধকের আগমনের প্রতীক্ষায় দিন গুনছে। যা এই মারণ রোগকে পুরোপুরি নির্মূল করে দেবে। ধীরে ধীরে সংক্রমণের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। মত্যুর হারও বাড়ছে পাল্লা দিয়ে। সাধারণ মানুষ নিজের মতো করে সুরক্ষার বন্দোবস্ত করে নিচ্ছে। কিছু কিছু এলাকার বাসিন্দারা কোনওরকম কোভিড-১৯ গাইড লাইন অনুসরণ করছে না। এখন তাই ই-কমা্স সংস্থা অ্যামাজনে বিক্রি হচ্ছে ইন্ডাস্ট্রিয়াল ব্লিচ। কারণ মানুষ এই ব্লিচকেই “অলৌকিক নিরাময়” (Miracle Mineral Solution) হিসেবে বিশ্বাস করছে। এদিকে শরীরের জীবাণুনাশক হিসেবে “অলৌকিক নিরাময়”-এর নামে ক্লোরিন ডাইঅক্সাইডের জার বিক্রি হচ্ছে অনলাইনে। ইতিমধ্যেই এই ক্লোরিন ডাইঅক্সাইডের মতো প্রাণঘাতী ব্লিচের ব্যবহার বন্ধ করতে বারংবার সাবধান করছে মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন।

সংবাদ মাধ্যম গার্ডিয়ানের রিপোর্ট বলছে, এই ক্লোরিন ডাই অক্সাইড সিটি কিট ও নার্টিরচোর হিসেবে বিক্রি হচ্ছে। যদিও এই ব্লিচ যে ইন্টারনালি ব্যবহার করা যাবে না, সে সম্পর্কিত সাবধানতার প্রচার চলছে সর্বত্র। যদিও অ্যামাজনের প্রোডাক্ট রিভিও সেকশনে গিয়ে দেখা যাচ্ছে। ক্রেতাদের অনেকেই করোনা তাড়াতে এই ক্লোরিন ডাইঅক্সাইড পান করেছে। মহামারী শুরু হওয়ার পথ থেকে শরীরকে জীবাণুমুক্ত কে কত ফোঁটা ব্লিচ খেয়েছেন, তাই নিয়েই এই সেকশনে রীতিমতো আলোচনা শুরু হয়েছে। কেউ কেউ লিখেছেন, এই ব্লিচ পান করে তাঁরা কতটা সুস্থ বোধ করছেন। সেজন্য ইউজাররা এই ক্লোরিন ডাইঅক্সাইডকে মিরাক্যল মিনারেল সলিউসন সংক্ষেপে MMS নামে ডাকছেন। আরও পড়ুন- Coronaviru Cases In India: সোমবার ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়ালো ৫৪.৮৭ লাখ, ১ দিনে করোনাজয়ী লাখ ছুঁই ছুঁই

সাধারণত জামাকাপড়ের কারখানায় ও কাগজ তৈরিতে এই ব্লিচের ব্যবহার হয়। জলকে জীবাণুমুক্ত করার কাজে এই ব্লিচের ব্যবহার একটি ভাল দিক। কিন্তু শরীরকে জীবাণুমুক্ত করতে ক্লোরিন ডাইঅক্সাইড পান করা বিপজ্জনক। কেউ কেউ আবার দাবি করছেন যে MMS ম্যালেরিয়া, ক্যানসার এমনকী, এডসও সারিয়ে দিচ্ছে। ভাইরাস রুখতে এই ক্লোরিন ডাইঅক্সাইডের ব্যবহার সংক্রান্ত কমেন্টগুলি মুছে ফেলতে তৎপর FDA, কারণ নাহলে অনেকেই রিভিও দেখে এই প্রাণঘাতী ব্লিচের ব্যবহার শুরু করে দেবে। এই MMS জাতীয় দ্রব্যাদি কখনওই FDA-র ছাড়পত্র পেতে পারে না। এই প্রোডাক্ট নেওয়া আর ব্লিচ পান করা একই ব্যাপার। ক্রেতাদের এগুলি ব্যবহার করা উচিত নয়। এমনকী, অভিভাবকরা যেন কোনওভাবেই ছেলেমেয়েদের এই ক্লোরিন ডাইঅক্সাইড ব্যবহারের জন্য না দেন। এনিয়ে FDA-র তরফে একটি সাবধানতামূলক বিবৃতিও প্রকাশিত হয়েছে। এই ক্লোরিন ডাইঅক্সাইডের ব্যবহারে দক্ষিণ আফ্রিকা ও আর্জেন্টিনাতে মানুষের মৃত্যুও হয়েছে। অনলাইন সংস্থা অ্যামাজন এমন দ্রব্য বিক্রি না করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। তবে তৃতীয়পক্ষ ইতিমধ্যেই অসাধু ব্যবসায় নেমে পড়েছে।