‘কেরালা আমার কাছে বিশেষ অর্থবহ’- নরেন্দ্র মোদি, ‘বন্যার সময় এলে কেরালা আপনাকে মনে রাখত, প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ রাহুলের
Rahul Gandhi. (Photo Credit: PTI)

দিল্লি, ৩০ আগস্ট: কেরালা তাঁর জন্য বিশেষ অর্থবহ। দ্বিতীয়বার দেশের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পরে পরেই তাই কেরালার গুরুভায়ুর মন্দিরে কীভাবে ছুটে গিয়েছিলেন তিনি। এক টুইট বার্তায় আজই একথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। আর আজই কোচি থেকে মালয়লম মনোরমা প্রাইভেট লিমিটেডের ভেঞ্চার মনোরমা নিউজ কনক্লেভের উদ্বোধন হয়েছে। দিল্লি থেকে ভিডিও কনফারেন্স মারফৎ এই উদ্বোধন প্রক্রিয়া সারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তারপর টুইটটি করেন। আর টুইট প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গেই পাল্টা কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তাঁর রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বি প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)। তিনি বলেন, যখন চলতি মাসে বন্যায় ভেসে গিয়েছিল কেরালার উপকূলীয় অঞ্চল, তখন কেন সেখানে গেলেন না প্রধানমন্ত্রী? প্রশ্ন তুলেছেন রাহুল।

তিনি বলেছেন, গোটা কেরালার বাসিন্দারা প্রধানমন্ত্রী কাছে কৃতজ্ঞ থাকতেন যদি তিনি বন্যা বিধ্বস্ত কেরালাকে (Flood Effected Kerala) একবার সেসময় দর্শন দিয়ে আসতেন। তবে এখনও সময় আছে কেরালার বন্যার্তদের জন্য আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করে সেই অভাব প্রধানমন্ত্রী কিছুটা হলেও পূরণ করতে পারেন। রাহুল পাল্টা টুইটে লিখেছেন, ‘প্রিয় মোদিজি, আপনার গুরুভায়ুর মন্দির (Guruvayur Temple) দর্শনের কিছুদিন পরেই ভয়ঙ্কর বন্যায় ভেসেছে কেরালা। মৃত্যু, ধ্বংসলীলার সব নিদর্শনই প্রকৃতি কেরালার গায়ে রেখে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে যদি আপনি একবার কেরালা ভ্রমণ করতেন তাহলে অন্তত তাপ্রশংসার দাবি রাখত। কেরালা এখন নিঃস্ব বন্যা বিধ্বস্ত, অন্যান্য রাজ্যের মতো এখানকার বাসিন্দারাও ত্রাণের আশায় দিন গুনছেন। এটা কিন্তু অন্যায্য।’ আরও পড়ুন- বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ তুলে নিখোঁজ উত্তরপ্রদেশের তরুণীর খোঁজ মিলল রাজস্থানে

উল্লেখ্য, চলতি মাসের প্রথম দিকে ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়ে ঈশ্বরের আপন দেশ কেরালা। এই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে প্রায় শতাধিক মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। বিরাট অংশের সম্পত্তি বাড়িঘর নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছে। সব থেকে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা মালাপ্পুরম জেলা। এটি রাহুল গান্ধীর লোকসভা কেন্দ্র ওয়ানাডের অ্ন্তর্গত একটি এলাকা। বন্যার দিনগুলিতে তিনি বার বার ফিরে গিয়েছেন নিজের লোকসভা কেন্দ্রে। সেখানকার দু্র্গত মানুষগুলির পাশে থেকে সমস্ত রকম সহয়োগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন এবং একই সঙ্গে নিরন্তর বন্যার ত্রাণের (Flood Relief Fund) আবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী কাছে।