TikTok Claims Another Life: টিকটকে ভিডিওর নেশায় অসবাধানতায় চলল গুলি, প্রাণ গেল কিশোরের
টিকটকে প্রাণ গেল কিশোরের (Photo Credits: Wikipedia, Pixabay)

লখনউ, ১৪ জানুয়ারি: টিকটকে (TikTok video) হিট করতে গিয়ে প্রাণটাই চলে গেল কিশোরের। নিজের মাথাতেই করল গুলি। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বরেলির মুদিয়া ভিকামপুর গ্রামে। মৃতের নাম কেশব কুমার(১৮)। সোমবার বিকেল পাঁচটা নাগাদ স্কুল থেকে ফিরে মা সাবিত্রী দেবীর কাছ থেকে তাঁর রিভলবার চায় কেশব। সাবিত্রী দেবী জানিয়েছেন, তাঁর রিভলবারের লাইসেন্সও রয়েছে। পেশায় সেনা জওয়ানের ছেলে ক্লাস টুয়েলভের পড়ুয়া কেশবের টিকটক ভিডিও বানানোর শখ ছিল। মাঝেমধ্যেই ভিডিও বানিয়ে সেগুলো নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করত ওই পড়ুয়া। পিস্তল নিয়ে নিজের মাথাতেই গুলি করে সে। গোটা ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

নবাবগঞ্জ পুলিশ থানার সার্কেল অফিসার যোগেন্দ্র যাদব জানিয়েছেন, কেশবের পরিবার জানিয়েছে, দেহের ময়নাতদন্ত করার প্রয়োজন নেই। রিভলবার সাবিত্রী দেবীর নামে রয়েছে। সেটি তাঁর আলমারিতেই রাখা থাকত।” কিন্তু তারপরেও এই ঘটনায় একটি এফআইআর দায়ের করেছে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। কেশবের বাবা বীরেন্দ্র রুরকিতে কর্মরত। তাঁর দুই সন্তান। কেশব ছোট। তার দিদির নাম প্রিয়াংশি। রিভলবারে যে গুলি আছে তা তিনি জানতেন না, এমনই দাবি মৃতের মায়ের। জানলে কিছুতেই তা কেশবের হাতে দিতেন না। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, রিভলবার নিজের ডানদিকের কাঁধে নিয়ে টিকটক ভিডিও করছিল কেশব। তখনই কোনওভাবে গুলি ছিটকে তার মাথায় লাগে। আরও পড়ুন-Jama Masjid Is Not In Pakistan: জামা মসজিদ পাকিস্তানে নয়, আজাদের গ্রেপ্তারি প্রশ্নে দিল্লি পুলিশকে তিরস্কার বিচারকের

সাবিত্রী দেবী জানিয়েছেন, “প্রথমে রিভলবার দিতে চাইনি। কিন্তু কেশব অনেক করে বায়না করার পর দেওয়া হয়। রান্নাঘর থেকে গুলির শব্দ পেয়ে ছুটে যাই।  সঙ্গে সঙ্গে ঘরে ঢুকে দেখি মাটিতে পড়ে রয়েছে কেশব। ওর মাথা থেকে রক্ত বেরিয়ে চারদিক ভেসে যাচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গে ওকে বরেলির একটা বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে ডাক্তাররা ওকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।”