Priyanka Gandhi Meets Injured JNU Students: আহতদের সঙ্গে দেখা করতে হাসপাতাল ছুটলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধি বঢরা
প্রিয়াঙ্কা গান্ধি বঢরা (Photo Credits: ANI | Twitter)

নতুন দিল্লি, ৬ জানুয়ারি: নেত্রী থেকে ক্রমশ তিনি জননেত্রী হওয়ার দৌড়ে নেমেছেন। সাম্প্রতিক বিভিন্ন ঘটনার সঙ্গে কোনও না কোনওভাবে নিজেকে একাত্ম করছেন তিনি। আসছেন খবরে। জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে (JNU) পড়ুয়াদের ওপর হামলার ঘটনাতেও হল তেমনটাই। আহতদের দেখতে সরাসরি হাসপাতালে পৌঁছে গেলেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধি বঢরা (Priyanka Gandhi Vadra)৷ রবিবার রাতেই তিনি আহতদের দেখতে হাসপাতালে যান। এদিন হাসপাতালে যান সিপিআইএম নেত্রী বৃন্দা কারাতও৷

জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে নক্কারজনকভাবে শিক্ষক ও পড়ুয়াদের ওপর হামলা চালানো হয়৷ তাতে আহত ২০ জন পড়ুয়া। ঘটনার দিন রাতেই তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদ সভাপতি ঐশী ঘোষ (aishi Ghosh) রয়েছেন AIIMS-র ট্রমা সেন্টারে৷ সেখানেই গেছেন প্রিয়াঙ্কা৷ এদিকে প্রতিবাদে সরব দেশের সব প্রান্তের মানুষ৷ জেএনইউ ক্যাম্পাসে মুখোশধারীরা লাঠিসোটা হাতে হামলা চালায়৷ অভিযোগের তির এবিভিপি-র (ABVP) দিকে৷ তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনিস ভাঙচুর করে এবং ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক সকলকেই আঘাত করে৷ রাজনৈতিক নেতা থেকে সংস্কৃতি দুনিয়ার তারকারা সকলেই নিগৃহত পড়ুয়াদের প্রতি সমবেদনা ব্যক্ত করার পাশাপাশি ঘৃণ্য ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন৷ এই ঘটনার পর পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ট্যুইটে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন৷ মমতা লিখেছেন , আমরা কড়াভাবে এই বর্বরোচিত ঘটনার নিন্দা করি৷ জেএনইউতে শিক্ষক ও ছাত্রদের ওপর যেভাবে হামলা হয়েছে তা নক্কারজনক৷ গণতন্দ্রের লজ্জা৷ তৃণমূলের প্রতিনিধি দল দীনেশ ত্রিবেদীর নেতৃত্বে দিল্লিতে রওনা হয়েছে৷ রাহুল গান্ধি, শশী থারুর, অরবিন্দ কেজরিওয়ালরাও ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন৷ সকলেই নিজের মত সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন৷ তালিকায় রয়েছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনও৷ কেন্দ্রীয় সরকারের অর্থমন্ত্রীর মতে যা ঘটেছে তা নক্কারজনক, শিক্ষাঙ্গনে এ ঘটনা কখনই কাম্য নয়৷ আরও পড়ুন: Priyanka Gandhi: স্কুটারে সওয়ার প্রিয়াঙ্কা গান্ধি, ট্রাফিক আইন না মানায় গুনতে হল কড়কড়ে ৬,১০০ টাকা!

এদিকে বিজেপির (BJP) পক্ষ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্যুইট করে এই ঘটনার নিন্দা করা হয়েছে৷ নিজেদের ট্যুইটে তাঁরা এও দাবি করেছে, ছাত্রদের নিজেদের উদ্দেশ্য সাধনের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে৷ দিল্লি কমিশনারের কাছে এই গোটা ঘটনার রিপোর্ট চেয়েছেন অমিত শাহ (Amit Shah)৷