Sri Lanka Crisis: শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সেনাবাহিনী ও পুলিশকে নির্দেশ ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি রনিল বিক্রমসিংহের
Ranil Wickremesinghe (Photo: IANS)

কলম্বো, ১৩ জুলাই: গোতাবায়া রাজাপাক্ষে (Gotabaya Rajapaksa) দেশ ছাড়তেই আজ সকাল থেকে নতুন করে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোতে (Colombo)। দেশের প্রধানমন্ত্রী ও ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি রনিল বিক্রমসিংহের (Sri Lanka Acting President Ranil Wickremesinghe) বাসভবন ও অফিস দখল করে নেয় বিক্ষোভকারীরা। প্রধানমন্ত্রীর অফিসে জাতীয় পতাকা ওড়ানো হয়। আজ সকালেই দেশে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। ক্রমবর্ধমান বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে কলম্বো-সহ পশ্চিম প্রদেশ জুড়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য কারফিউ জারি করা হয়েছে।

টেলিভিশনে প্রচারিত এক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহ জানিয়েছেন, শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার জন্য যা করা প্রয়োজন, সেটা করার জন্য সেনাবাহিনী ও পুলিশকে তিনি নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেন, "বিক্ষোভকারীরা ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন থেকে আমাকে বাধা দিতে চায়। আমরা ফ্যাসিস্টদের ক্ষমতা দখল করতে দিতে পারি না।" আরও পড়ুন: Sri Lanka Crisis: মলদ্বীপ ছেড়ে এবার সিঙ্গাপুরে উড়ে যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাক্ষে, লঙ্কায় ক্ষোভ চরম সীমায়

বিক্রমসিংহ আরও বলেন, "আমরা আমাদের সংবিধান ছিন্ন করতে পারি না। আমরা ফ্যাসিস্টদের ক্ষমতা দখল করতে দিতে পারি না। আমাদের অবশ্যই গণতন্ত্রের জন্য এই ফ্যাসিবাদী হুমকির অবসান ঘটাতে হবে। প্রতিবাদকারীদের দখলে থাকা রাষ্ট্রীয় ভবনগুলিকে অবশ্যই রাষ্ট্রীয় হেফাজতে ফিরিয়ে দিতে হবে।"

ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি এটাও ঘোষণা করেছেন যে নাগরিকদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এবং দেশে আইনশৃঙ্খলা পুনরুদ্ধার করতে চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ, তিন বাহিনীর কমান্ডার এবং আইজিপি-র সমন্বয়ে একটি কমিটি নিয়োগ করা হয়েছে। কমিটিকে রাজনীতির হস্তক্ষেপ ছাড়াই কাজ করার জন্য সমস্ত ক্ষমতা দেওয়া হবে।

এই মুহুর্তে দেশের পশ্চিম প্রদেশে কারফিউ জারি করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে নির্দেশ আসার পর দূরবর্তী স্থান থেকে কলম্বো ফোর্টে পৌঁছনোর জন্য় ট্রেনগুলিকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত থামিয়ে দেওয়া হয়েছে মাঝপথে। কারণ বিক্ষোভকারীরা বেশ কয়েকটি রেল স্টেশনে হামলা চালিয়েছে। কয়েকজন স্টেশন মাস্টারকে মারধর করা হয়েছে।

এদিকে, শ্রীলঙ্কা পার্লামেন্টের স্পিকার মাহিন্দা ইয়াপা আবেওয়ার্দেনা বলেছেন যে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপাক্ষে তাঁর পদত্যাগপত্র পাঠাবেন। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিক্রমাসিংহেকে দেশের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে।