Coronavirus Outbreak: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্রিটেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাদিন ডোরিস, সংক্রমণ এড়াতে বন্ধ পার্লামেন্ট
নাদিন ডোরিস(photo Credits: Twitter)

লন্ডন, ১১ মার্চ: করোনাভাইরাসের কাঁটায় (Coronavirus Outbreak) থরহরি কম্প গোটা বিশ্ব। চার হাজার মৃত্যু ঘটে গিয়েছে। আক্রান্তের সংক্যা লক্ষাধিক। তবে চিকিৎসক স্বাস্থ্যকর্মী, শ্রমিক, ব্যবসায়ীদের শরীরে সিওভিআইডি-১৯ এর সংক্রমণ হু হু করে বেড়েছে। এতদিন সেই তালিকায় ছিলেন না কোনও নেতা বা মন্ত্রী। এবার সেই রেকর্ড ভাঙল। ইংল্যান্ডের স্বাস্থ্য বিভাগের মন্ত্রীর শরীরে করোনাভাইরাস পজিটিভ মিলেছে। মন্ত্রী নাদিন ডোরিস নিজেই সেকথা জানিয়েছেন। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে নিজেই জানিয়েছেন, মন্ত্রকের এক আধিকারিকের শরীরে মিলেছে সংক্রমণ। মূলত সচেতনতা বাড়াতেই এই বিবৃতি প্রকাশ করা হল। তিনি বলেন, “আমি ইতিমধ্যেই করোনাভাইরাসের জন্য যে স্বাস্থ্যপরীক্ষা আছে তা করিয়ে নিয়েছি। রক্তের নমুনায় সংক্রমণের লক্ষ্ণ রয়েছে। তাই সুরক্ষার কারণে বাড়িতেই আইসোলেশনে আছি।”

এই স্বাস্থ্যকর্তা এখন কোঁজার চেষ্টা করছেন, কীভাবে তাঁর শরীরে এই মারণ রোগের জীবাণু এল। কার ছোঁয়ায় এমন বিপর্যয় ঘটেছে। ইরানে ইতিমধ্যেই করোনাভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে ২৯১ জনের। শেষ ২৪ ঘণ্টায় ৫৪ জনের শরীরে এই রোগের জীবাণু মিলেছে। আর ব্রিটেনে করোনার থাবায় ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। প্রমাণিত সংক্রামিতের সংক্যা ৩৭০। এই মারণ রোগে লড়াই করতে গেলে নাজানি কত ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে। তাই নিজেই এই সংক্রান্ত আইন প্রণয়নে উঠেপড়ে লেগেছিলেন ডোরিস। ব্রিটিশ রাজনীতিবিদদের মধ্যে তিনিই প্রথম করোনায় আক্রান্ত হলেন। টাইমসের রিপোর্টানুসারে, নাদিন ডোরিস অন্তত ১০০ জনকে স্পর্শ করেছেন। এই তালিকায় আছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনও। করোনাভাইরাসকে উল্লেখযোগ্য রোগ হিসেবে চিহ্নিত করার কাজই করছিলেন গত শুক্রবার। যাতে আক্রান্তরা বিমার আওতায় আসতে পারেন তারজন্য আইন প্রণয়ন করে সেসব কাগজপত্রে সইসাবুদ চলছিল। সেই সময়ই তিনি অসুস্থ বোধ করেন। আরও পড়ুন-COVID-19 Scare: করোনা আক্রান্ত দেশে ঘুরে আসার তথ্য গোপন করলে অপরাধ হবে, বললেন কেরালার স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ব্রিটেনের জাতী স্বাস্থ্য পরিষেবাকে ধন্যবাদ দিয়ে তিনি বলেন, স্বাস্থ্যকর্মীরা যে তাঁকে পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করেছেন, তা তাঁর ভীষণভাবে কাজে এসেছে। এই শকিং খবরে ব্রিটেনের পার্লামেন্ট আপাতত স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে।