Wrongfully Convicted: ভুল বিচারে মৃত্যুদণ্ড-৩১ বছর জেলে, ক্ষতিপূরণে মিলল ৫৫০ কোটি
প্রতীকী ছবি(File Photo)

নর্থ ক্যারোলিনা, ১৬ মে: দীর্ঘ ৩১টা বছর কেটে গিয়েছে। সমাজের চোখে-দেশের চোখে ওরা খুনি-ধর্ষক। ১৯৮৩ সালে ১১ বছরের এক বালিকাকে খুন করে ধর্ষণের অভিযোগে দুই দুর সম্পর্কের ভাইকে গ্রেফতার করেছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনা পুলিশ। তখন একজনের বয়স ছিল ১৯, আরেক জনের ১৫। সেই থেকে ওরা জেলে। বছর তিনেক জেলে থাকার পর তাদের মৃত্যুদণ্ডের (Death Row) সাজাও হয়। কিন্তু বিচার প্রক্রিয়ায় নানা জটিলতার কারণে তাদের মৃত্যুদণ্ড পিছিয়ে যেতে থাকে। মৃত্যুদণ্ডের সাজার ভয়ে ওরা বছরের পর বছর কাটিয়েছে। আরও পড়ুন: বিশ্বব্যাপি করোনায় মৃত্যু সাড়ে ৩৩ লক্ষ ছাড়াল,কবে থামবে মৃত্যু মিছিল!

দীর্ঘ ৩১ বছর পর ৮ সদস্যের বিচারক দল বলল, বড় ভুল হয়েছে। ওরা দোষী নয়। তদন্তে মারাত্মক ভুল ছিল, বিচার প্রক্রিয়ায়ও ঠিকমত হয়নি। ডিএন পরীক্ষার পর নিশ্চিত হওয়া যায় তারা নিরাপরাধ। এই কারণেই নর্থ ক্যারলিনার  (North Carolina) দুই কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তি হেনরি ম্যাককলাম (Henry McCollum) ও লিয়ন ব্রায়ন (Leon Brown)কে বেকসুর খালাস করা হয়। এরপর তারা বিচারব্যবস্থার ভুলের জন্য মামলা করে। মামলা জিতে এই দুই মার্কিন ব্যক্তি ক্ষতিপূরণ হিসেবে ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৫৫০ কোটি ($৭৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) পেলেন। তাদের জেল খাটার প্রতি বছর ১ মিলিয়ন ডলার হিসেবে ও পাশাপাশি আরও এককালীন ১৩ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেওয়া হল। কিন্তু এতো গেল আর্থিক ক্ষতির কথা। কিন্তু, ৩১টা বছর?

যে ৩১টা বছর ওদের কেটেছে জেলের অন্ধ কুটুরিতে। বারবার ওরা চিৎকার করে বলেছে, আমরা নিরাপরাধ। কিন্তু আইন সেসব কথা শোনেনি। তদন্তের শেষে দেখা যায় ১১ বছরের সেই বালিকার ধর্ষণের দিন তারা ঘটনাস্থলে ছিলই না। এত বছর বিনা অপরাধে জেলে থাকায় তাদের মানসিক অবস্থা খারাপ হয়ে গিয়েছে। নর্থ ক্যারোলিনার জেলে ওরাই সবচেয়ে বেশিদিন জেল খাটার কষ্টের রেকর্ড গড়েছে। অবশেষে তারা বিচার পেল। জেল থেকে ছাড়া পেয়ে হেনরি জানালেন, "ওদের মত অনেকেই জেলে বিনা অপরাধে বন্দি রয়েছে। আশা করছি তাদেরও আমাদের মত বিচার পাবে।"