Mamata Banerjee: জয়ের পর ত্রিশঙ্কু দলকে শুভেচ্ছা জানালেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি
মমতা ব্যানার্জি (Photo Credits: IANS)

কলকাতা, ২৩ ডিসেম্বর: সোমবার ছিল ঝাড়খণ্ড বিধানসভার ভোটগণনা (Jharkhand Assembly Elections Results 2019)। সন্ধ্যে গড়াতেই স্পষ্ট হয়ে যায়, ঝাড়খণ্ডে বিজেপিকে সরিয়ে ক্ষমতায় আসছে ত্রিশঙ্কু জোট। অর্থাৎ ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা (জেএমএম)-কংগ্রেস-রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি)-এর জোট। সেই সঙ্গে রঘুবর দাসকে (Raghubar Das) হটিয়ে ঝাড়খণ্ডে মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন হেমন্ত সোরেন (Hemant Soren)। এই খুশিতে সামিল হলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। জয়ের খবর সামনে আসা মাত্রই তিনি শুভেচ্ছা জানান ত্রিশঙ্কু দলকে। এদিন টুইটারে শুভেচ্ছা জানিয়ে ত্রিশঙ্কু দলের উদ্দেশ্যে তিনি লেখেন, "হেমন্ত সোরেন জি, আরজেডি, কংগ্রেসকে ঝাড়খণ্ড জয়ের শুভেচ্ছা। নিজের চাহিদা পূরণ হওয়ায় মানুষ আপনাদের প্রতি ভরসা রেখেছেন। তাই ঝাড়খণ্ডের সমস্ত ভাই-বোনকে আমার শুভ কামনা। সিএএ-এনআরসি প্রতিবাদের মাঝেই ঝাড়খণ্ড বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এটা জনগণের রায়।"

ঝাড়খণ্ড বিধানসভায় মোট আসন ৮১টি। সরকার গড়তে প্রয়োজন ছিল ৪১। যা ছুঁতে পেরেছে ত্রিশঙ্কু দলই। এদিন ফলাফল স্পষ্ট হতে শুরু করার সঙ্গে সঙ্গেই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গাতেই জোট শিবিরের উল্লাসের ছবি উঠে আসে। জেএমএম ও কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে শুরু হয়ে যায় মিষ্টিমুখ পর্ব। আবার কোথাও বাজি পোড়াতে শুরু করেন কংগ্রেস ও জেএমএম সমর্থকরা। দেখা গিয়েছে, ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা (জেএমএম)-কংগ্রেস-রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি)-এর জোট ৮১ আসনের মধ্যে পেয়েছে মোট ৪৭টি আসন (Seat)। যারমধ্যে ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা একা পেয়েছে ৩০টি আসন। কংগ্রেস ১৬টি এবং আরজেডি ১টি। এদিকে বিজেপি পেয়েছে ২৪টি আসন। অন্যদিকে বাকি দলগুলি যেমন আজসুপ পেয়েছে ৩টি আসন, জেভিএমপি পেয়েছে ৩টি আসন। আরও পড়ুন: Jharkhand Assembly Elections Results 2019: ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন হেমন্ত সোরেন

ভোট গণনা শুরু হতেই দু’পক্ষের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শুরু হয়ে যায় এদিন। ধীরে ধীরে স্পষ্ট হয়ে যায় পালাবদলের ইঙ্গিত। এখনও পর্যন্ত যা খবর, তাতে ফের মুখ্যমন্ত্রীর (Chief Minister) চেয়ারে বসতে চলেছেন শিবু সোরেনের পুত্র হেমন্ত সোরেন। জয়ের পর রাজ্যবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন হেমন্ত। পাশপাশি জোটসঙ্গীদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা ব্যক্ত করেছেন। ২০০০ সালে গঠিত ঝাড়খণ্ড রাজ্য গত মাসেই ২০ বছরে পা দিয়েছে। এদিন সকাল ৮টা থেকে ভোট গণনা শুরু হয়। আয়তনে ছোট হলেও এদিন গোটা দেশের নজর কেড়ে নিয়েছিল ঝাড়খণ্ড বিধানসভার ভোটগণনা।