আদালত অবমাননার দায়ে বিজেপি সাংসদ জন বার্লার বিরুদ্ধে জারি গ্রেফতারি পরোয়ানা

তুফানগঞ্জ: আদালত অবমাননার (Contempt of Court) দায়ে আলিপুরদুয়ারের (Alipurduar) বিজেপি সাংসদ (BJP MP) জন বার্লার (John Barla) বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা (arrest warrant) জারি করল তুফানগঞ্জ আদালত (Tufanganj court)।

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের (Lok Sabha elections) সময় নির্বাচনী বিধিভঙ্গের দায়ে (violation of model code of conduct) বিজেপি সাংসদ (BJP MP) ও কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু মন্ত্রকের (Union Minister of State for Minority) রাষ্ট্রমন্ত্রী জন বার্লার নামে কোচবিহার জেলার (CoochBehar district) তুফানগঞ্জ আদালত (Tufanganj court) শুক্রবার ওই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে।

সরকারি আইনজীবী সঞ্জয় বর্মনের কথায়, ২০১৯ সালের ৪ এপ্রিল তুফানগঞ্জের ব্লক ডেভলপমেন্ট অফিসের চত্বরে একটি মোটর সাইকেল মিছিল বের করা হয়। আলিপুরদুয়ারের বিজেপি প্রার্থী জন বার্লা ওই মিছিলে হাজির থেকে নির্বাচনী বিধিভঙ্গ করেন। তার জেরে জন বার্লা-সহ চার ব্যক্তির নামে নির্বাচনী বিধিভঙ্গের অভিযোগে স্থানীয় বক্সীরহাট পুলিশ স্টেশনে একটি অভিযোগ দায়ের হয়। এর ভিত্তিতে তুফানগঞ্জের সাব ডিভিশন আদালত জন বার্লার বিরুদ্ধে একটি সমন জারি করে তাঁকে ১৫ নভেম্বর কোর্টে হাজিরা দিতে নির্দেশ দেয়।

কিন্তু, সমন পাওয়ার পরেও জন বার্লা বা তাঁর কোনও আইনজীবী ওই দিন আদালতে হাজির হননি। তাই আদালত অবমাননার দায়ে তুফানগঞ্জের সাব ডিভিশন আদালতের বিচারক বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করলেন।

এপ্রসঙ্গে সরকারি আইনজীবী বর্মন জানান, আদালতের রায়ের প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে জন বার্লা নিজেকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার বলে অভিযোগ করেছেন। তাঁর কথায়, আমি দেশের বিচার ব্যবস্থার প্রতি অত্যন্ত শ্রদ্ধা প্রদর্শন করি। এর আগে আমি ৪৫ দিন জেলের মধ্যে ছিলাম। আমার বিরুদ্ধে জারি হওয়া এই গ্রেফতারি পরোয়ানা রাজনৈতিক প্রতিহিংসার নিদর্শন।

যদিও এপ্রসঙ্গে তৃণূমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক ও মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, আদালতের তরফে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। এর মধ্যে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কোনও প্রশ্নই নেই। আইন তার নিজের পথেই চলবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বার্লা হল পশ্চিমবঙ্গের দ্বিতীয় বিজেপি সাংসদ যাঁর নামে মাত্র ৭২ ঘণ্টার মধ্যে নিন্ম আদালতের তরফে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হল। এর আগে নভেম্বরের ১৪ তারিখ আলিপুরদুয়ার জুডিসিয়াল থার্ড কোর্ট ২০০৯ সালের একটি পুরনো মামলায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী নিশীথ প্রামানিকের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে ছিল।