Jitendra Tiwari: দলে থেকেও ব্রাত্য! টুইটে জল্পনা উসকে দিলেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি
জিতেন্দ্র তিওয়ারি(Photo Credits: Social Media)

আসানসোল, ১৮ জানুয়ারি: শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যোগদানের পরেপরেই তৃণমূল ছেড়ে পদ্মশিবিরে যাওয়ার তোড়জোর শুরু করেছিলেন আসানসোলের প্রাক্তন পুর প্রশাসক জিতেন্দ্র তিওয়ারি (Jitendra Tiwari)। মেয়রের দায়িত্ব ছাড়েন। জেলা সবাপতির পদেও ইস্তফা দেন। তবে আসানসোলের সাংসদ তথা বিজেপি নেতা বাবুল সুপ্রিয়র নাপসন্দ হওয়ায় তাঁর আর পদ্মশিবিরে যোগ দেওয়া হয়নি। বেগতিক বুঝে ক্ষমা টমা চেয়ে সেবারের মতো পরিস্থিতির সামলে দেন ডাকসাইটে উকিল জিতেন্দ্র তিওয়ারি। তবে ভাঙা কাচ কি আর এত সহজে জোড়া লাগে। জিতেন্দ্রবাবুর ক্ষেত্রেও তার ব্যাতিক্রম হয়নি। দিদির সৈনিক পদে বহাল থেকেও আসানসোলের কোনও গুরুত্বপূর্ণ পদ আর ফিরে পেলেন না পাণ্ডবেশ্বরের এই তৃণমূল বিধায়ক। আরও পড়ুন-ShivSena On WB Assembly Elections 2021: পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে লড়বে শিবসেনা, জয় বাংলা! স্লোগান দিয়ে টুইট সঞ্জয় রাউতের

রবিবারই তৃণমূলের পশ্চিম বর্ধমান জেলা কমিটি থেকে বাদ পড়েছেন জিতেন্দ্র। এমনকি, জেলা সভাপতি পদেও আর তাঁকে ফেরানো হয়নি। বরং তাঁর ছেড়ে দেওয়া পদটি তুলে দেওয়া হয়েছে অপূর্ব মুখোপাধ্যায়ের হাতে। এদিকে জেলা কমিটি থেকে বাদ পড়েও ‘দিদির সৈনিক’-এর থেকে বড় কোনও পদ হয় না বলে রবিবার অভিমত ব্যক্ত করেছিলেন জিতেন্দ্র। রাত পোহাতেই টুইটারে নিজের মনের অবস্থা জানিয়েছেন তিনি। সোমবার সকালে নিজের টুইটার হ্যান্ডলে পাণ্ডবেশ্বরের এই ডাকাবুকো বিধায়ক লেখেন, “হোয়েন দ্য গোয়িং গেট্‌স টাফ, দ্য টাফ গেট্স গোয়িং।” অর্থাৎ, পরিস্থিতি যখন কঠিন হয়ে দাঁড়ায়, দৃঢ়চেতা মানুষ নিজেই তার মোকাবিলা করতে পারে। ক্ষমা য়েচেও য়ে তৃণমূল নেতৃত্বে আস্থা তিনি আর অর্জন করতে পারেননি তা এতদিনে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। আর যতই কালকে নিজেকে মমতা সৈনিক বলে প্রচার করার চেষ্টা করুন না কেন ভিতরে ভিতরে যে তিনি বেশ অসন্তুষ্ট তা এই টুইটে প্রকাশ পেয়েছে।

দলে থেকেও দলীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ঠান্ডা লড়াই। তাহলে কী ফের পদ্মশিবিরের দিকে ঝুঁকছেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি? বিষয়টি স্পষ্ট না হলেও তৃণমূলের পিছুটান যে তাঁর পুরোপুরি কেটেছে তাতে কোনও সন্দেহ নেই। একই ভাবে তিনি দলে থাকলেন নাকি গেলেন তানিয়েও আসানসোলের তৃণমূল নেতৃত্বের কোনও মাথাব্যথা নেই। এই পরিস্থিতিতে জিতেন্দ্র তিওয়ারির বিজেপিতে যোগদান পর্বের পথ আরও প্রশস্ত হয়েছে। তবে তাতে কী, বঙ্গবিজেপিতে যেভাবে অচ্ছুৎ তিনি তাতে কোন দলে আমরা তাঁকে দেখতে পাব তানিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে।