Locket Chatterjee: 'স্বাস্থ্যসাথী কার্ড আদতে ভাঁওতাবাজি', দাবি লকেট চ্যাটার্জির
লকেট চ্যাটার্জি। Photo Source: Twitter

কলকাতা, ১১ জানুয়ারি: ২১-র নির্বাচনে (2021 West Bengal Assembly Election) স্বাস্থ্যসাথী (Swastho Sathi Prakalpa) প্রকল্পকে হাতিয়ার করেই নির্বাচনী প্রচারে বিরোধী দলকে বাজিমাৎ করার পরিকল্পনা করেছিল তৃণমূল শিবির। এবার সেই কৌশলকেই এক হাত নিলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চ্যাটার্জি (Locket Chatterjee)। সাধারণ মানুষের 'চোখে ধুলো দিয়ে' এই ধরণের প্রকল্পের সূচনা করেছেন রাজ্য সরকার। নির্বাচন শেষ হতেই বন্ধ হয়ে যাবে এই পরিষেবাও, হেস্টিংসের মোড়ে বিজেপি (BJP) পার্টি অফিসে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এমনটাই দাবি করলেন লকেট চ্যাটার্জি। এদিন লকেটের পাশাপাশি সাংবাদিক বৈঠক করেন বিজেপি নেত্রী অগ্নিমিত্রা পালও। আর পড়ুন: Suvendu Adhikary Rally: স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে উত্তরে শুভেন্দু, দক্ষিণ পথে অভিষেক! কার পাল্লা ভারী?

সাংবাদিক বৈঠকে লকেট চ্যাটার্জি বলেন, "স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে রোগীরা হাসপাতালে ঘুরে ঘুরে অনেক রোগী মারা গিয়েছেন। এটি ভাঁওতাবাজি ছাড়া আর কিচ্ছু নয়। সাধারণ মানুষকে ভুল বুঝিয়ে এই ধরণের প্রকল্প চালু করা হয়েছে ভোটের আগে। ভোটের পর এই প্রকল্প আর থাকবে না। রাজ্যের মানুষ কোনও সুবিধে পাবেন না এটি থেকে।"

স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের একমাত্র বিকল্প পথ যে আয়ূষ্মান ভারত, সেটিও এদিন স্পষ্ট করেন লকেট চ্যাটার্জি।  ১ ডিসেম্বর থেকে রাজ্যের সকল পরিবারকে স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের (Swastha Sathi Scheme) আওতায় আনা হয়েছে। বেসরকারি হাসপাতালে ৫ লাখ পর্যন্ত বিমার সুবিধা পাওয়া যাবে এই স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের অধীনে।নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে একথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের (2021 West Bengal Assembly Polls) আগে মাস্টারস্ট্রোক মুখ্যমন্ত্রীর, এমনটাই দাবি করেছিলেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা।