Rose Valley Scam: প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়-কে তলব ইডি-র, বুম্বা-দাকে নিয়ে ব্রেকিংয়ে চাঞ্চল্য টলিউডে
অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (Photo Credit: Facebook)

কলকাতা, ৯ জুলাই:  শতাব্দী রায়, মদন মিত্রের পর এবার প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (Actor Prosenjit Chatterjee)। চিটফান্ড কাণ্ডে প্রসেনজিৎ (বুম্বা দা)-কে তলব করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। গতকালই সারদা কাণ্ডে তদন্তে সিবিআই-এর তলব যায় অভিনেত্রী সাংসদ শতাব্দী রায়ের কাছে। তিনি সারদার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর ছিলেন। সারদা মামলার মূলে পৌঁছাতে চাইছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা।

তাই তাঁকেও জিজ্ঞাসাবাদ করবেন সিবিআই কর্তারা। আগামী ১২ জুলাই সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে শতাব্দী রায়কে হাজির থাকতে হবে। শতাব্দীর পরপরেই এক কালের সহকর্মী প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে ডেকে পাঠাল ইডি (Enforcement Directorate)। বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই জলঘোলা শুরু হয়েছে। আরও পড়ুন-সারদা মামলার জট খুলতে এবার শতাব্দী রায়কে তলব করল সিবিআই

জানা গিয়েছে, জেলে গিয়ে সারদা কর্তা সুদীপ্ত সেন ও সহকারী দেবযানীকে জিজ্ঞাসাবাদের আগে অন্যান্যদের বক্তব্য গুলো আর একবার করে ঝালিয়ে নিচ্ছে সিবিআই। জেলে গিয়ে শুধু দুতরফের কথাবার্তা মেলানোর পালা। শতাব্দী রায়কে জেরা করে পাওয়া তথ্যের সঙ্গে পুলিশ কর্তা অর্ণব ঘোষ ও রাজীব কুমারের বয়ান মেলানো হবে। বিধাননগর থানায় যেসব নথি জমা পড়েছে তার সত্যতাও খতিয়ে দেখা হবে। গতকাল রোজভ্যালি কাণ্ডে মদন মিত্রকে জেরা করে ইডি। এর মধ্যে সারদার ২৫টি অফিসে অভিযান চালিয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। ১২ তারিখের পর সেই তথ্যাদি শতাব্দী রায়ের বক্তব্যের সঙ্গে মিলিয়ে দেখা হবে।

উল্লেখ্য, লোকসভা ভোটের আগে থেকেই চিটফান্ড তদন্ত নিয়ে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে কেন্দ্র। তাই সারদা কেলেঙ্কারি, রোজভ্যালি কাণ্ড (Rose Valley scam) এখন খবরের শিরোনামে। তৃণমূল সরকারকে বিপাকে ফেলতে এই চিটফান্ড কাণ্ডের থেকে ভাল কোনও বিষয় সামনে নেই। একুশের বিধানসভা ভোটের আগেই তাই এই তদন্তগুলি শেষ করতে চাইছে কেন্দ্র। সে কারণেই গৌতম কুণ্ডুর সংস্থা ঠিক কীভাবে অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে চুক্তি করেছিল তা জানতেই ডেকে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত অভিনেতার কোনও বক্তব্য পাওয়া না গেলেও জানা গিয়েছে, আগামী ১৯ জুলাই ইডি-র সামনা সামনি হতে হবে অভিনেতাকে। রোজভ্যালির বেশকিছু বিজ্ঞাপনে তিনি অভিনয় করেছেন। সেখানেই টাকাপয়সার যে লেনদেন তাঁর সঙ্গে হয়েছে, তার বিশদ জানতেই এই তলব।