শেষ দফায় ভোটে প্রতি থানায় ২টি করে কিউআরটি, দায়িত্বে থাকবে রাজ্য পুলিস
বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙচুরের পর বিদ্যাসাগর কলেজে কলকাতা পুলিস।(Credit-IANS)

১৬মে, ২০১৯:‌ শেষ দফার ভোটে রাজ্য পুলিসেই আস্থা রাখল নির্বাচন কমিশন (Election Commission) । ভোট পরিচালনা নিয়ে

রাজ্য পুলিসের সঙ্গে কমিশনের সঙ্ঘাত চরমে পৌঁছেছিল। বুধবারে কমিশন স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্যকে (Atri Bhattacharya) সরিয়ে দেওয়ার পর রাজ্যের সঙ্গে কমিশনের সঙ্ঘাত আরও চরমে ওঠে। তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ভোট পরিচালনার কাজে রাজ্য পুলিসকে দায়িত্ব দেওয়ার কথা জানাল নির্বাচন কমিশন

ভোটে কিউআরটি (QRT)পরিচালনার দায়িত্ব রাজ্য পুলিসের হাতেই দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কমিশনের বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক। এতদিন এই দায়িত্ব ছিল কমান্ডান্টের হাতে। অর্থাৎ কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতে।

রবিবার সপ্তম ও শেষ দফায় সর্বোচ্চ ৯টি আসনে ভোট রাজ্যে। দমদম, বারাসত, বসিরহাট, জয়নগর, জয়নগর, মথুরাপুর, ডায়মন্ড হারবার, যাদবপুর, কলকাতা উত্তর ও কলকাতা দক্ষিণ- এই ৯টি আসনে ভোটগ্রহণ। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, শেষ দফায় মোট ৭১০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী(Central Force)  ব্যবহার করা হবে। ৪৪৪ কোম্পানি কুইক রেসপন্স টিম বা কিউআরটি মোতায়েন করা হবে শেষ দফায়। প্রসঙ্গত, প্রতি থানায় ২টি করে কিউআরটি মোতায়েন করা হবে।কোথায় কত বাহিনী মোতায়েন থাকবে তা দেখে নেওয়া যাক এক নজরে:

বারাসত- ৫৫ কোম্পানি

বারাকপুর- ৪৮ কোম্পানি

বারুইপুর- ১০২ কোম্পানি

বসিরহাট- ৭১ কোম্পানি

বিধাননগর- ২৭ কোম্পানি

ডায়মন্ড হারবার- ৮১ কোম্পানি

সুন্দরবন- ৮০ কোম্পানি

কলকাতা- ১৪৭ কোম্পানি

ভাটপাড়া- ৬ কোম্পানি

দার্জিলিং- ১৬ কোম্পানি

হাবিবপুর- ১১ কোম্পানি

ইসলামপুর- ১০ কোম্পানি

মুর্শিদাবাদের নওদা ও কান্দিতে- ২২ কোম্পানি

শেষ দফায় মোট বুথসংখ্যা ১৭ হাজার ৪২। এরমধ্যে ১০ হাজার ২৩২টি বুথে সিসিটিভি ও ওয়েব কাস্টিংয়ের ব্যবস্থা থাকছে।