Kolkata: রাজ্যের পাওনা টাকা দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার, অভিযোগ মমতা ব্যানার্জির
মমতা ব্যানার্জি (ফাইল ফোটো) (Photo Credits: PTI)

কলকাতা, ১৪ নভেম্বর: রাজ্যের পাওনা টাকা দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার। বৃহস্পতিবার আবারও অভিযোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (Mamata Banerjee)। তিনি জানান, ওই অর্থ পেলে ঘুর্ণিঝড় বুলবুলের (Bulbul) ত্রাণকার্যে (releif work) তা কাজে আসত। মুখ্যমন্ত্রী আশাপ্রকাশ করেছেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi) সাহায্য করবেন। তার ফলে বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগু‌লিকে সাহায্য করা সম্ভব হবে। বৃহস্পতিবার নবান্নে সাংবাদিকদের মমতা ব্যানার্জি বলেন, "কেন্দ্রীয় সরকার অক্টোবর পর্যন্ত করের ৬৪০ কোটি টাকা দেয়নি। আমরা যার কারণে সমস্যার মুখোমুখি হয়েছি। মোট ১৭০০ কোটি টাকা কেন্দ্রীয় সরকারের থেকে পাওনা রয়েছে। দেশের আর্থিক বৃদ্ধি এত কম যে প্রতিটি রাজ্যই ভুগছে। যদি ওরা আমাদের এই প্রাপ্য মিটিয়ে দিত, তাহলে সেই টাকায় আমরা ত্রাণের কাজ চালাতে পারতাম।" তিনি জানিয়েছেন, ওই প্রাপ্য মিটিয়ে দেওয়ার জন্য তিনি কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি লিখবেন। মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি নিয়ে তিনি বলেন, "কিছু লোক আছে যারা বিজেপির মুখপত্রের মতো কাজ করছেন। আমার রাজ্যেও কিছু লোককে সমান্তরাল সরকার চালানোর চেষ্টা করতে দেখেছেন।"

এনডিভি বাংলার খবর অনুযায়ী মমতা ব্যানার্জি বলেন, "এটা একটা ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়। কিছু মানুষ এই পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর পরিবর্তে রাজনীতি করছে। আমি তাদের এর থেকে বিরত থাকতে বলব। এটা রাজনীতি করার সময় নয়।" তিনি আরও বলেন, "কেন্দ্র ও রাজ্য প্রত্যেকের নিজস্ব ভূমিকা রয়েছে। তাদের এই পরিস্থিতিতে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।" বুধবার বুলবুলের জেরে ক্ষতিগ্রস্ত উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে আকাশপথে পরিদর্শন করেন মুখ্যমন্ত্রী। এই বিষয়ে তিনি বলেন, "ওখানে গিয়ে আমি যা দেখলাম ঘুর্ণিঝড় ব্যাপক ধ্বংসলীলা চালিয়েছে। কলকাতা ও রাজ্যের অন্যান্য অঞ্চলে বসে আন্দাজ করা যাবে না ধ্বংসের পরিমাণ। যদি আমি ভুল না করি, আমার মতে ক্ষতির পরিমাণ ৫০,০০০ কোটি টাকারও বেশি।" আরও পড়ুন: Kolkata: বুলবুলের জের, পিছিয়ে গেল বিপর্যস্ত জেলাগুলিতে স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষা

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, যে কৃষকরা কৃষিবীমা করিয়েছিলেন তাঁরা একশো শতাংশ কভারেজ পাবেন। পাশাপাশি তিনি কৃষকদের সব রকম সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন। দ্রুত ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের জন্য বিশেষ প্যাকেজের ঘোষণা করার কথাও জানান মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রকোপে মোট ৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন। নিখোঁজ ৭ মৎস্যজীবী। সব মিলিয়ে ৬ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। ধ্বংস হয়েছে ৫ লাখ বাড়ি। এই সব বাড়ির পুনর্নির্মাণের আশ্বাস দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, "সরকারি প্রকল্পের অধীনে এই সব বাড়ি আবার তৈরি করে দেওয়া হবে।" একই সঙ্গে রাজ্যের সব ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে একটি করে লণ্ঠন ও ৫ লিটার করে কেরোসিন তেল দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।