Rajeev Kumar: রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করল আলিপুর আদালত, প্রাক্তন পুলিশ কর্তার খোঁজের বহাল তল্লাশি
রাজীব কুমার (Photo Credits: IANS)

কলকাতা, ২১ সেপ্টেম্বর:  আলিপুর জেলা আদালতে (Alipore District Court) আজ শনিবার রাজীব কুমারের (Rajeev Kumar) আগাম জামিনের (Anticipatory Bail Plea) আবেদনের শুনানি ছিল। বারাসতের জেলা দায়রা আদালতে (Barasat Court) রাজীবের আবেদন শোনা হয়নি। তাঁকে আলিপুরের অতিরিক্ত মুখ্য বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট বৃহস্পতিবার জানিয়ে দিয়েছিলেন, পরোয়ানা (Arrest Warrant) ছাড়াই ADG-CID রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করতে পারবে সিবিআই (CBI)। গ্রেফতারি এড়াতে তাই গত শুক্রবারই আলিপুর জেলা বিচারকের এজলাসে আগাম জামিনের আবেদন জানিয়েছিলেন কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার (EX Police Commissionar)। বেলা গড়াতেই স্পষ্ট হল, আগাম জামিন পাচ্ছেন না প্রাক্তন পুলিশ কর্তা (Ex Police Officer)। তাঁর ওই আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে দিয়েছে আলিপুর আদালত।

শুক্রবার আদালতে আগাম জামিনের আবেদন করেন রাজিবের স্ত্রী (Wife) সঞ্চিতা কুমার (Sanchita Kumar)। তার ভিত্তিতেই এ দিন আদালতে উপস্থিত হয়েছিলেন রাজীবের আইনজীবীরা (Lawyer)। অন্যদিকে, রাজীবের আগাম জামিন আটকাতে এদিন আদালতে হাজির ছিলেন সিবিআই (CBI)-র আইনজীবীরাও। আরও পড়ুন - Rajeev Kumar: রাজীব কুমারের আগাম জামিনের শুনানি চলছে আলিপুর জেলা আদালতে

রাজীবকে হন্যে হয়ে খুঁজছে সিবিআই। বৃহস্পতিবার মাঝরাত থেকে চলছে তল্লাশি। কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের (Rajeev Kumar) খোঁজে তাঁর স্ত্রীকেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সিবিআই (CBI), সূত্রের খবর এমনই। ২৪ ঘণ্টার খবর অনুযায়ী, সিবিআই জানিয়েছে ডিএসপি (DSP) পদমর্যাদার এক মহিলা অফিসার সঞ্চিতা কুমারকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন, রাজীব কুমার কোথায় আছেন? রাজীব কুমারকে খুঁজতে খাস ভবানী ভবনে (Lal Bazar) পৌঁছে যান সিবিআই-র একটি দল। শনিবার দুপুরেই সেখানে পৌঁছয় ৬ জনের এই গোয়েন্দা দলটি। রিসেপশনে তাঁরা জিজ্ঞেস করেন এডিজি সিআইডি কোথায়? জবাব না মেলায় কাউকে তোয়াক্কা না করেই সটান তিন তলায় (Second Floor) সিআইডির সদর দফতরে উঠে যান তাঁরা। পাশাপাশি রাজীব কুমারের আপ্ত সহায়ক শুভম ব্যানার্জিকে (Shubham Banerjee) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিজিও কমপ্লেক্সে (CGO Complex) ডেকে পাঠিয়েছে সিবিআই। সূত্রের খবর, রাজীব কুমারের ২ দেহরক্ষী (Security Personnel) ও তাঁর ট্রাভেল এজেন্টকেও (Travel Agent) ডেকে পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা (National Investigating Agency)।