Pink Ball Fever:   শহিদ মিনার, বেন টাওয়ার থেকে হাসপাতাল ক্রিকেট জ্বরে গোলাপি হল শহর কলকাতা
গোলাপী হল শহর কলকাতা (Photo Credits: Sourav Ganguly/ Twitter)

কলকাতা, ২১ নভেম্বর: নীল-সাদা (Blue & White) কলকাতায় এবার গোলাপি (Pink) ঝড়। শহরের প্রতিটি কোণা মুড়িয়ে ফেলা হয়েছে গোলাপি আলোতে। ভারত-বাংলাদেশ (India vs Bangladesh) 'পিঙ্ক বল' (Pink Ball) টেস্ট ম্যাচ নিয়ে হয়েছে ঢালাও আয়োজন। ইডেন গার্ডেন্স (Eden Gardens) সেজেছে গোলাপি আলোয়। শুধু তাই নয়। গোলাপি হয়েছে হাওড়া ব্রিজ (Howrah Bridge), লেকটাউনের বেন টাওয়ার (Laketown Ben Tower) এমনকি অ্যাপোলো হাসপাতালও (Apollo Hospital)। কলকাতার স্কাইস্ক্রেপার 'দ্য ফোর্টিটু'-ও (The 42) সেজেছে গোলাপিতে, এছাড়াও সৌরভ গাঙ্গুলির (Sourav Ganguly) ছবি ও ভারতীয় ক্রিকেট দলের (Indian Cricket Team) লোগো-ও জ্বলজ্বল করছে সেখানে।

এক ঐতিহাসিক ম্যাচের (Historic Match) সাক্ষী থাকতে চলেছে শহর কলকাতা (Kolkata) তথা ইডেন গার্ডেন্স। ভারতীয় উপমাহাদেশে এই প্রথম গোলাপি বলে টেস্ট ম্যাচ হবে। সৌরভের হাত ধরে ভারতীয় ক্রিকেটে নতুন অধ্যায় শুরু হচ্ছে। আগামী প্রজন্মের কাছে এই ম্যাচ ইতিহাস হয়ে থাকবে। স্টেডিয়াম, স্কোরবোর্ড-সহ শহিদ মিনার, টাটা বিল্ডিং সবেতেই গোলাপি আভা। গঙ্গার বুকে ভেসে চলা ভেসেলেও গোলাপি রং, শহরের সমস্ত সরকারি অফিস গোলাপি। গোলাপি বলের ক্রিকেটকে বরণ করতেই স্মৃতির শহরের এত আয়োজন। ক্রিকেটের মক্কা সেদিন গোলাপি গাউন, গোলাপি রিবনে সেজে খিলিয়ে হাসবে। শুধু আলো নয়, টেস্ট ক্রিকেটের ভবিষ্যতকে বরণ করে নিতে সব্বাইকে ম্যাচ দেখার অনুরোধ করেছেন সৌরভ গাঙ্গুলী। আরও পড়ুন, ইডেনে গোলাপী বলের ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচ, ক্রিকেট জ্বরে কাঁপছে কলকাতা, কী বললেন মহারাজ?

গতকাল সৌরভ গাঙ্গুলী সোশ্যাল মিডিয়ায় গোলাপিতে মোড়া শহরের প্রতিটি কোণার ছবি পোস্ট করেন। কলকাতা শহরজুড়ে যেন ব্রাজিলের ফুটবলের মত কার্নিভালের রেশ। ভারত বনাম বাংলাদেশ দিনরাতের টেস্ট ম্যাচ। বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলির (Saurav Ganguly) প্রচেষ্টায় ইডেন গার্ডেন্সে হচ্ছে ম্যাচ। ৬৫ হাজার টিকিট তিনদিনেই বিকিয়ে গিয়েছে, টেস্ট ম্যাচের ইতিহাসে যা বিরলতম ঘটনা। অভিনব বিন্দ্রা থেকে, পিভি সিন্ধু, গোপীচাঁদ থেকে শুরু করে সমস্ত তারকা খেলোয়াড় থাকবেন সেদিন ইডেনে। উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, এদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও।