Shweta Ratanpura: বিশ্ব দক্ষতার দরবারে ইতিহাস গড়ে পদক শ্বেতা রতনপুরা-র, গ্রাফিক্স ডিজাইনে সাফল্যে
দক্ষতার বিশ্ব দরবারে ভারতীয়দের দারুণ ফল। ইতিহাস গড়লেন শ্বেতা রতনপুরা। (Photo Credits: IANS)

দেশের মুকুটে আরও একটা বড় পালক জুড়লেন ভারতের মেয়ে শ্বেতা রতনপুরা (Shweta Ratanpura) । দেশের প্রথম মহিলা হিসেবে বিশ্ব দক্ষতা বা ওয়ার্ল্ড স্কিল (World Skill) -এর মঞ্চে পদক জিতলেন শ্বেতা। রাশিয়ার কাজানে (Kazan Russia) আয়োজিত স্কিলের বিশ্বমিটে শ্বেতা জিতলেন ব্রোঞ্জ। শ্বেতা যে বিভাগে ব্রোঞ্জ জিতলেন সেটি হল গ্রাফিক্স ডিজাইন টেকনোলজি। পিটি ঊষা থেকে সানিয়া মির্জা। সাইনা নেহওয়াল থেকে পিভি সিন্ধু, হিমা দাস-রা যেভাবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেশকে সাফল্য এনে দেশকে নতুন মাইলস্টোন উপহার দিয়েছেন, ঠিক তেমনই শ্বেতা ইতিহাস গড়লেন। ওয়ার্ল্ড স্কিলের আসর হল এমন এক ক্ষেত্র যেখানে গোটা মানুষের দক্ষতা বিচার করে পদক দেওয়া হয়। কোন দেশে স্কিল কতটা তার একটা মাপদণ্ড এই বিশ্বমিট।

থ্রিডি ডিজিটাল গেম আর্ট থেকে কৃষিবিদ্যা, বিমান সংরক্ষণ। বায়ো টেকনোলজি থেকে বেকারি, বিউটি কেয়ার-বিউটি থেরাপি। গাড়ি রঙ থেকে ক্লাইড কম্পিউটিং। বিশ্বের নানা বিষয়ে নানা বিভাগে সেরা দক্ষ লোকেদের সন্ধান দেয় এই 'ওয়ার্ল্ড স্কিল'।

এবারের বিশ্ব স্কিল-এর আসরে ভারত একটা সোনা সহ মোট ১৯টি পদক জিতল। এই বিশ্ব মিটে ৬৩টি দেশের মোট ১,৩৫০ জন প্রতিযোগী অংশ নিয়েছিল। পদক তালিকায় ভারত ১৩তম স্থানে শেষ করল। এবারের ওয়ার্ল্ড স্কিলের আসরে ভারত মোট ৪৮ জনকে পাঠিয়েছিল। এবারই ওয়ার্ল্ড স্কিলের আসরে সেরা ফল করল ভারত। আয়োজক দেশ রাশিয়া পদক তালিকায় শীর্ষ থাকল। রাশিয়া জিতল ১৯টি সোনার পদক। ১৯৫০ সাল থেকে প্রতি দু বছর অন্তর  স্কিল যাচাইয়ের শ্রেষ্ঠত্বের এই প্রতিযোগিতা চলে। মোট ৫১টি বিভাগে দক্ষতার লড়াই চলে। সেই বিশ্বমঞ্চে ভারতীয়রা নজর কাড়লেন।