Bear Meat: ভাল্লুকের মাংস খেয়ে মস্তিষ্কে বিপজ্জনক কৃমি, পারিবারিক পার্টিতে ভাল্লুক খেয়ে গুরুতর অসুস্থ ৯
Bear (Photo Credit: Wikipedia)

বছর দুয়েক আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটায় এক ব্যক্তি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন জ্বর, পেশীতে টান, চোখ জ্বালা সহ বেশ কিছু উপসর্গ নিয়ে। আর পাঁচটা অসুখ, জ্বর থেকে অনেকটাই আলাদারকম ছিল সেই ব্যক্তির সমস্যা। ২৯ বছরের সেই ব্যক্তির অদ্ভুত ধরনের রোগ নিয়ে গবেষণা করে আমেরিকার রোগ নিয়ন্ত্রক ও প্রতিরোধক সংস্থা 'সিডিসি'। দু বছর পর গবেষণার শেষ উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। ২৯ বছরের সেই ব্যক্তি এক পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন। সাউথ ডাকোটায় হওয়া সেই পার্টিতে বেশ কিছু খাবারের সঙ্গে ৯ জন খান কালো ভাল্লুকের মাংস।

ভাল্লুকের মাংস এক মাসেরও বেশী ফ্রিজে রাখা ছিল। ফ্রিজ থেকে বের করে খুব কম সময় হাল্কা ভেজেই তুলে পরিবেশন করা হয়। এরপরই শরীর খারাপ করতে শুরু করায় পার্টিতে কেউ আর কিছু খেতে চাননি। পরে ভাল্লুকের মাংস খাওয়া ৯ জনই গুরুতর অসুস্থ বোধ করতে শুরু করেন। আরও পড়ুন-রাস্তার মাঝে দুই দল যুবকের মধ্যে তুমুল অশান্তি, রেষারেষির জেরে গাড়ির ধাক্কায় আহত এক

পরে ২৯ বছরের এক ব্যক্তি কয়েক দিনের ব্যবধানে নিয়মিত জ্বর হওয়ার কথা জানান ডাক্তারদের। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ডাক্তারের তিনি জানিয়েছিলেন, এক পারিবারিক অনুষ্ঠানে তিনি ভাল্লুকের মাংস খেয়েছিলেন। সেই সূত্র ধরে ডাক্তররা তাঁর ঘনঘন জ্বর হওয়ার কারণ ধরে ফেলেন। অর্ধ রান্না হওয়া বাসি ভাল্লুকের মাংস খেয়ে গোলকৃমি ছড়িয়ে পরে তাদের মস্তিষ্কে। আর এর ফলে শরীরে নানা ধরনের সমস্যা হয়। এই পরিবারের আরও পাঁচজন একই ধরনের সমস্যায় হাসপাতালে ভর্তি হন। তাদের মধ্যে ১২ বছরের এক কিশোরীও আছে।

অ্যালবেনডাজোলে নামের এক ওষুধের মাধ্যমে তাদের চিকিতসা চলছে। এই ওষুধের ফলে ট্রিচিনেলোসিস নামের বিশেষ ধরনের কৃমি আর মস্তিক থেকে এনার্জি শুষতে পারে না, ফলে তারা শেষে মারা যায়। ১৬৫ ডিগ্রি ফারেনহাইটের উষ্ণতায় রান্না করলে ভাল্লুকের মাংস থেকে পরজীবীগুলি মারা যায়। কিন্তু সেই পার্টিতে একবার হাল্কা গরম করেই তুলে নেওয়া হয়।