চিনা মাঞ্জায় গলা কেটে মর্মান্তিক মৃত্যু চার বছরের শিশুর, রাখিতে জীবন নেওয়ার পর এবার চিনা মাঞ্জা জন্মাষ্টমিতেও প্রাণ কাড়ল
প্রাণ কাড়ল মাঞ্জা। প্রতীকী ছবি। (Photo Credits: Twitter)

নয়া দিল্লি, ২৫ অগাস্ট: Delhi:  খুনে চিনা মাঞ্জা (Chinese Manjha) ফের প্রাণ নিল। আরও একবার দিল্লিতেই আট দিনের ব্যবধানে চিনা মাঞ্জার কারণে মৃত্য়ুর ঘটনা ঘটল। রাখির দিন দিল্লিতে চিনা মাঞ্জায় গলা কেটে মৃত্য়ু হয় এক সিভিল ইঞ্জিনিয়ারের। আর গতকাল সেই দিল্লিতেই জন্মাষ্টমিতে মন্দিরে যাওয়ার সময় এক চার বছরের শিশু কন্যা চিনা মাঞ্জায় গলা কেটে মারা গেল। মাঞ্জা দিয়ে ঘুড়ি ওড়ানো একেবারে মরণখেলা হয়ে দাঁড়িয়েছে। মাঞ্জায় ধার যত বেশি অন্যের ঘুড়িকে ভোকাট্টা করার সম্ভাবনা তত বেশি। তাই মাঞ্জাতে একেবারে ধারালো মসৃণ করতে হবে।

সেই মারণ চিনা মাঞ্জা গলা কেটে প্রাণ কাড়ল ফুলের মত শিশুর। দেশের রাজধানী শহর দিল্লির খাজুরি খাস এলাকায় চাইনিজ মাঞ্জায় গলা কাটা মর্মান্তিক মৃত্য়ু হল চার বছরের শিশু কন্য়ার। আরও পড়ুন-অবরুদ্ধ কাশ্মীরে জীবনদায়ী ওষুধ শেষ হতে চলেছে, অসুস্থদের অবস্থা ক্রমশ খারাপ হচ্ছে, রিপোর্টে প্রকাশ

সন্ধ্য়া ৬টা নাগাদ জন্মাষ্টমীর জন্য বাবার বাইকে চেপে মন্দিরে যাচ্ছিল চার বছরের ইশিকা কুমার শর্মা। ইশিকার সঙ্গে ছিল তার বোন, মা ও বাবা। বাইকের সামনে বসেছিল ছোট্ট ইশিকা। সফরের মাঝপথেই আচমকা ইশিকার আর্তনাদ শুনে বাইক থামায় তারা বাবা গিরিশ শর্মা। গিরিশ দেখেন, তাঁর ছোট্ট মেয়ের গলা দিয়ে রক্ত পড়ছে। সঙ্গে সঙ্গে ইশিকাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু ততক্ষণে যা ক্ষতি হওয়ার হয়ে গিয়েছে। ডাক্তাররা জানান, অতি ধারালো মাঞ্জায় গলা কাটায় অত্যধিক রক্তক্ষরণে ছোট্ট ইশিকা মারা গিয়েছে। কান্নায় ভেঙে পড়ে মেয়েটির পরিবার।

জন্মাষ্টমিতে মন্দিরে যাবে বলে ইশিকা একেবারে নতুন জামা পরেছিল। কিন্তু, শেষ অবধি চাইনিজ মাঞ্জা ওর জীবন কাড়ল। সুপ্রিম কোর্টে মাঞ্জার ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ হিসেবে ঘোষণা হওয়া সত্ত্বেও দেশের সর্বত্র রমরমিয়ে ঘুড়ি ওড়াতে মাঞ্জার ব্যবহার করা হয়। ক দিন আগেই, রাখির দিনে দিল্লির রোহিনি এলাকায় চিনা মাঞ্জায় গলা কেটে প্রাণ হারান এক সিভিল ইঞ্জিনিয়ার।