Gangaur Vrat 2024: অখণ্ড সৌভাগ্য লাভের জন্য করা হয় গঙ্গাউর উপবাস! জেনে নিন গঙ্গাউর ব্রত কবে এবং এই উপবাসের নিয়ম ও গুরুত্ব...

গঙ্গাউর হল রাজস্থানের ঐতিহ্যবাহী উৎসব। এই উৎসব পালন করে বিবাহিত মহিলারা। রাজস্থানের পাশাপাশি গঙ্গাউর ব্রত আড়ম্বর সহকারে পালিত হয় মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ এবং হরিয়ানাতেও। স্বামীর সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘায়ুর জন্য বিবাহিত মহিলারা পালন করে এই উৎসব। প্রিয় জীবনসঙ্গী পাওয়ার জন্য অবিবাহিত মেয়েরাও করে এই উপবাস। এদিন ভগবান শিব এবং মাতা পার্বতীর পুজো করা হয়। এই দিনে, বিবাহিত মহিলারা খুব সুন্দর করে সেজে তাদের স্বামীর মঙ্গল ও দীর্ঘায়ুর জন্য উপবাস করে। এদিন ভগবান শিব ও মাতা গৌরীর একসঙ্গে পুজো করা হয়। মান্যতা রয়েছে যে, ভালো মনে বিশ্বাসের সঙ্গে এই পুজো করলে অখণ্ড সৌভাগ্যের আশীর্বাদ লাভ হয়।

২০২৪ সালে গঙ্গাউর উপবাস ও পুজো করা হবে ১১ এপ্রিল। ২০২৪ সালে চৈত্র শুক্লপক্ষের তৃতীয়া শুরু হবে ১০ এপ্রিল, বুধবার সন্ধ্যা ০৫:৩২ মিনিটে এবং শেষ হবে ১১ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার, বিকাল ৩ টায়। উদয় তিথি অনুসারে, গঙ্গাউর ব্রত পালিত হবে ১১ এপ্রিল। গঙ্গাউর পুজোর শুভ সময় ১১ এপ্রিল সকাল ০৬:২৯ মিনিট থেকে ০৮:২৪ মিনিট পর্যন্ত। গঙ্গাউরে ভগবান শিব-পার্বতীর মাটির মূর্তি তৈরি করে পুজো করা হয়। গঙ্গাউর পূজিত হয় গৌরী তৃতীয়া নামেও। ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে, এদিন মাতা পার্বতী ভগবান শিবের সঙ্গে পৃথিবী পরিদর্শন করেন।

চৈত্র শুক্লপক্ষের তৃতীয়ায় ব্রাহ্ম মুহুর্তে ঘুম থেকে উঠে স্নান করে পরিষ্কার বস্ত্র পরে ভগবান শিব ও গৌরীর ধ্যান করে গঙ্গাউর উপবাস ও নিয়ম মেনে পুজো করার প্রতিজ্ঞা নেওয়া হয়। এরপর তৈরি করতে হয় ভগবান শিব ও দেবী পার্বতীর মাটির মূর্তি। এরপর মূর্তি স্থাপন করে ধূপ প্রদীপ জ্বালিয়ে গঙ্গাউরী পুজোর মন্ত্র জপ করতে হয়। পৌরাণিক কাহিনী অনুযায়ী, একবার ভগবান শিব, দেবী পার্বতী এবং মহর্ষি নারদ পৃথিবীতে এসে এক বনে ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। তখন পাশের গ্রামের মহিলারা খবর পেয়ে শিব ও পার্বতীর জন্য বিভিন্ন খাবার তৈরি নিয়ে আসে এবং ফুল দিয়ে তাঁদের স্বাগত জানিয়ে সুস্বাদু খাবারের খাওয়ায়। শিব ও পার্বতী গ্রামবাসীদের ভক্তিতে সন্তুষ্ট হয়ে তাদের আশীর্বাদ দেন। এরপর থেকেই বিবাহিত মহিলারা খুব আনন্দের সঙ্গে পালন করে গঙ্গাউর উৎসব।