Muhurat Trading History: মুহুর্ত ব্যবসা কি? ভারতীয় সংস্কৃতিতে এর তাৎপর্য এবং তার ইতিহাস কি? পড়ুন বিস্তারিত
BSE (Photo Credit: Wikimedia Commons)

দীপাবলির সন্ধ্যায় শেয়ার মার্কেটের সবথেকে বড় উৎসব- মুহুর্ত ব্যবসার (Muhurat Trading ) সময়। বলা যেতে পারে ভারতীয় স্টক মার্কেটে মুহুর্ত ট্রেডিং হল একটি নির্দিষ্ট সময়ের ট্রেডিং কার্যকলাপ যা একটি নির্দিষ্ট তিথি ও সময় মেনে করা হয়

ইতিহাসঃ- 

ছয় দশকেরও বেশি আগে মুহুর্ত ব্যবসার ঐতিহ্যের জন্ম হয়। ১৯৫৭ সালে বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে (BSE) প্রথমে এই শুভ মুহুর্তের শুরু হয়েছিল। এরপর ১৯৯২ সালে ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ (NSE)ও এই শুভ অনুশীলনকে গ্রহণ করেছিল। তারপর থেকে, প্রতিটি দীপাবলির নির্দিষ্ট সময় নির্ধারিত মুহুর্তগুলি ট্রেডিং সেশন দ্বারা চিহ্নিত করা হয়েছে। হিন্দু বণিক সম্প্রদায় বা হিন্দুদের কাছে এটি একটি ঐতিহ্য।দীপাবলি যেহেতু নতুন বছরের সূচনা করে, তাই বিশ্বাস করা হয় যে এই দিনে 'মুহুর্ত ব্যবসা' সারা বছর ধরে সম্পদ এবং সমৃদ্ধি নিয়ে আসে।

হিন্দু ক্যালেন্ডার অনুসারে "মুহুর্ত" হল একটি শুভ সময় যেখানে জ্যোতিষ শাস্ত্র অনুসারে  গ্রহগুলি এমনভাবে নিজেদের অবস্থান বজায় রাখে যার ফলে কোন  অশুভ শক্তির প্রভাব ছাড়াই এই সময়ের মধ্যে যে কাজটি করা হয় তা ফলপ্রসূ হয় এবং। একটি নির্দিষ্ট মুহুর্তে লগ্নে তিথিতে বিয়ে হওয়া যেমন সাধারণ ব্যাপার, তেমনি দীপাবলির দিনে একটি নির্দিষ্ট মুহুর্তের সময়ে শেয়ার বাজারে লেনদেন করা হয়।

কতটা ট্রেড করা হয়:

এই দিনে করা ট্রেডগুলি ঐতিহ্যগত, ধর্মীয় এবং অনুভূতির কারণে বেশি হয়, ব্রোকার এবং বিনিয়োগকারীরা টোকেন বিনিয়োগ করেন এবং সাধারণত এক বছর বা তার বেশি সময় ধরে স্টক ধরে রাখে।

কেন মুহুর্ত ব্যবসা ?

হিন্দুদের ধন সম্পদের দেবী লক্ষ্মী, তাই তাঁর পূজার মুহুর্তের সময় ব্যবসা করা একটি ঐতিহ্য। ভারতের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে, দীপাবলি দিয়ে নতুন বছর শুরু হয়। তাই  ধনতেরাসের পূজার (আচার) পাশাপাশি দীপাবলির দিনে একটি নতুন বছরের সূচনা বোঝাতে অ্যাকাউন্টের বই এবং সেফ এগুলো আলাদা করে রাখা হয়। এবং একটি নতুন মুদ্রা,  যাকে সম্পদ মনে রেখে পুজোর আগে হিসাবের খাতায় রাখা হয়। স্টক ব্রোকাররা এক্সচেঞ্জে 'লক্ষ্মী পূজা' এবং 'চোপদা পূজা' করে এবং প্রথাগত মুহুর্ত ব্যবসা শুরু করে।