S Jaishankar: 'LAC-তে যে হারে সেনা সংখ্যা বাড়ছে, তা অস্বাভাবিক', চিনের সঙ্গে সীমান্ত সমস্যা নিয়ে বললেন জয়শঙ্কর
S Jaishankar 9Photo Credit: Twitter)

কলকাতা, ১৫ মে: চিনের (China) সঙ্গে ভারতের (India) যে সীমান্ত রয়েছে, সেখানে সেনা মোতায়েন কেন 'অস্বাভাবিক' এবার তার ব্যাখ্যা দিলেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর (S Jaishankar)। ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্সের একটি অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে জয়শঙ্কর বলেন, সীমান্তে চিন যেভাবে সেনা মোতায়েন করছে, গালওয়ান সংঘর্ষের সময় তার যোগ্য জাবাব ভারত দিয়েছে।

ইন্ডিয়ান চেম্বার অফ কমার্সের ওই অনুষ্ঠানে জয়শঙ্কর আরও বলেন, ১৯৬২ সালের পর তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী চিনে যান। চিনের সঙ্গে ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক যাতে সুস্থির হয়, সেই পদক্ষেপ করতেই পড়শি দেশে যান রাজীব। চিনের সঙ্গে সীমান্ত সমস্যা নিয়ে আলোচনা হবে কিন্তু তা শান্তি, শৃঙ্খলা বজায় রেখে। শান্তি বজায় রেখেই চিনের সঙ্গে সীমান্ত সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা হবে বলে রাজীব গান্ধীর আলোচনায় ওই সময় উঠে আসে। চিনের সঙ্গে সীমান্ত সমস্যা নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি বাকি বিষয় নিয়েও কথা হবে বলে জানিয়েছিলেন প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী। সেই থেকে এখনও পর্যন্ত চিনের সঙ্গে শান্তি, সুস্থিতি বজায় রেখে যাতে সম্পর্ক চালানো যায়, ভারত সেই চেষ্টাই করছিল বলেও জানান বিদেশমন্ত্রী।

আরও পড়ুন: S Jaishankar: 'কয়েক দশক ধরে জ্ঞান দেওয়ার অভ্যেস', পশ্চিমী বিশ্বের বিরুদ্ধে কড়া তোপ জয়শঙ্করের

যদিও ভারত আলোচনার মাধ্যমে চিনের সঙ্গে সীমান্ত সমস্যার সমাধান করতে চাইলেও, ২০২০ সাল থেকে ছবি পালটাতে শুরু করে। ২০২০ সালে চিন একাধিকবার সীমান্তে ব্যাপক হারে  সেনা মোতায়েন করে ভারতীয় সীমানার মধ্যে প্রবেশের চেষ্টা করে। কোভিড লকডাউনের সময় চিন একাধিকবার ওই কাজ করে বলে জানান জয়শঙ্কর। গত চার দশক ধরে চিনের সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখার যে চেষ্টা ভারত করচিল, গালওয়ান সংঘর্ষের সময় তা ছিন্ন হয়। ওই সময় ২০ ভারতীয় জওয়ানের মৃত্যুর ঘটনা ভোলা যায়নি বলে মন্তব্য করেন জয়শঙ্কর।

গালওয়ানে ২০ জন ভারতীয় জওয়ানের মৃত্যুর পর থেকে যোগ্য জবাব দিতে শুরু করে দিল্লি। হামলার হেল চিনা সেনাকে কোনওভাবে রেয়াত করা হচ্ছে না বলে স্পষ্ট জানান ভারতের বিদেশমন্ত্রী। ভারত, চিন সীমান্তে যেভাবে সেনা মোতায়েন সংখ্যা বাড়ছে,তা এক কথায় অস্বাভাবিক। কিন্তু কোনও ভারতীয় দেশের অপমান সহ্য করবে না। ফলে সীমান্তে দিনের পর দিন ধরে ভারতও সেনার সংখ্যা বৃদ্ধি করছে বলে জানান জয়শঙ্কর।

সেই সঙ্গে কেন ভারতের বাজার চিনের উপর নির্ভর করবে বিভিন্ন জিনিষের জন্য? ফলে চিনের উপর নির্ভর না করে যাতে ভারতের বাজার আরও উন্নত করা যায়, সেটা দিল্লির কাছে চ্যালেঞ্জ বলেও  জানান জয়শঙ্কর।