অযোধ্যায় ১৮ নভেম্বর রামমন্দির নির্মাণ হবে, বললেন রাজস্থানের বিজেপি বিধায়ক জ্ঞানচাঁদ পরখ
জ্ঞানচাঁদ পরখ (Photo Credits: Facebook)

জয়পুর, ৭ অক্টোবর: ১৮ নভেম্বর অযোধ্যায় (Ayodhya) রামমন্দির (Ram Temple) নির্মাণ হবে বলে জানালেন রাজস্থানের বিজেপি বিধায়ক জ্ঞানচাঁদ পরখ (BJP MLA Gyanchand Parakh)। বাবরি মসজিদ-রাম জন্মভূমি বিতর্ক মামলায় (Babri Masjid-Ram Janmabhoomi Case) সুপ্রিম কোর্ট এখনও রায় ঘোষণা করতে না পারলেও রাজস্থানের ভারতীয় জনতা পার্টির (BJP) এই বিধায়কের মন্তব্য নতুন করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। তাঁর অনুমান, সুপ্রিম কোর্টের রায় হিন্দু সংগঠনগুলির পক্ষে যাবে। জ্ঞানচাঁদ পরখের আরও দাবি, ২০১৮ সালটি রামভক্তদের জন্য শুভ।

তিনি বলেন, "অযোধ্যা মামলার শুনানি ১৭ অক্টোবরের মধ্যে শেষ হবে। ১৮ নভেম্বর নাগাদ অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণ হবে। এই বছরটি আমাদের জন্য খুব শুভ।" জ্ঞানচাঁদ পরখ রবিবার তাঁর বিধানসভা কেন্দ্র পালিতে রামলীলা অনুষ্ঠানে যোগ দেন। সেখানেই তিনি এই ঘোষণা করেন। এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল তাঁকে। দিন দুয়েক আগে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Uttar Pradesh Chief Minister Yogi Adityanath) বলেন, "রামমন্দির সম্পর্কিত একটি খুব সু-সংবাদ সকলের জন্য অপেক্ষা করছে।" তিনি বলেন, "আমরা রামভক্ত। ভক্তিতে প্রচুর শক্তি রয়েছে। আমি অনুভব করছি যে শীঘ্রই আমরা খুব ভালো একটি খবর শুনতে পাব।" আরও পড়ুন: Telangana Govt Sacks 48,000 Employees: ৪৮ হাজার পরিবহন কর্মচারীকে বরখাস্ত করল তেলাঙ্গানা সরকার, ধর্মঘটকে 'ক্ষমাহীন অপরাধ' বললেন কেসিআর

শুক্রবার অযোধ্যা মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্ট বলেছিল যে বাবরি মসজিদ-রাম জন্মভূমি বিতর্ক মামলার শুনানি ১৭ অক্টোবরের মধ্যেই শেষ করে দেওয়া হবে। প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ-র নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ এই মামলায প্রতিদিন শুনেছে। আশা করা হচ্ছে যে, প্রধান বিচারপতির অবসর গ্রহণের দিন ১৭ নভেম্বর বা তার আগে এই মামলার রায় দেওয়া হবে। এই বেঞ্চে বিচারপতি এসএ ববদে, ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়, অশোক ভূষণ এবং এসএ নাজিরও রয়েছেন।

২০১০ সালে অযোধ্যার বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড, নির্মোহী আখড়া এবং রাম লালা— এই তিন পক্ষের মধ্যে সমান ভাবে ভাগ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল এলাহাবাদ হাইকোর্ট। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে মোট ১৪টি মামলা দায়ের হয়েছিল শীর্ষ আদালতে। সেই মামলাগুলি একত্রিত করে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে শুনানি চলছে প্রতিদিন।