Ram Mandir Bhumi Pujan: রাম মন্দির নির্মাণে রুপোর ইট গাঁথবেন প্রধানমন্ত্রী, ইতিহাসের সাক্ষী হওয়ার অপেক্ষায় মুহূর্ত গুনছে অযোধ্যা
রাম মন্দিরের ভূমি পুজো উপলক্ষে আলোর মালায় অযোধ্যা (Photo Credits: Twitter/@ShriRamTeerth)

অযোধ্যা, ৫ আগস্ট: আজকের আসন্ন ঐতিহাসিক মুহূর্তের উদযাপনে মাটির প্রদীপে সেজেছে মন্দির শহর অযোধ্যা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজনৈতিক দল বিজেপি একটা সময় অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। সেকারণেই আজ রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও ভূমি পুজোয় (Ram Mandir Bhumi Pujan) যোগ দিতে বেলা ৯.৩৫ মিনিট নাগাদ দিল্লি থেকে লখনউতে উড়ে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বিমানযোগে প্রথমে লখনউতে পৌঁছাবেন প্রধানমন্ত্রী। তারপর সেখান থেকে হেলিকপ্টারে চড়ে আসবেন অযোধ্যায়। রাম জন্মভূমিতে তাঁর পৌঁছানোর নির্দিষ্ট সময় বেলা সাড়ে এগারোটা। বেলা সাড়ে বারোটায় শুরু হবে ভূমি পুজো। তারপর রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

এরপর বেলা পৌনে বারোটায় ভগবান রামের মূর্তিতে পুজো শুরু হবে। এই সময়টিকে শুভক্ষণ বলা হচ্ছে। কেননা তখনই দেবতার জন্ম হয়েছিল। ৪০কিলো ওজনের রুপোর ইট দিয়েই রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন নরেন্দ্র মোদি। এই মুহূর্তটি হল প্রতীকীর মতো, যার জন্য টানা কয়েক দশক ধরে লড়ছে তাঁর দল বিজেপি। একদা যেখানে বাবরি মসজিদ ছিল, সেখানে রাম মন্দির তৈরিতে লেগে গেল ৪ দশক সময়। এই মুহূর্তটি বিশ্বজুড়ে বসবাস করা ভারতীয়দের কাছে গৌরবের মুহূর্ত। স্বাধীন ভারতের এক স্বরণীয় মুহূর্ত এটি, এমনটাই মনে করে শাসক বিজেপি। যা ভগবান রামের মতাদর্শকেই তুলে ধরে। এই রাম জন্মভূমি আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ তথা বিজেপির প্রবীণ নেতা লালকৃষ্ণ আদবানি। করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে আজ অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজোয় উপস্থিত থাকছেন না তিনি। অসুস্থতা এড়াতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে খবর। আরও পড়ুন-Lebanon: লেবাননের রাজধানী বেইরুটে ভয়াবহ বিস্ফোরণে মৃত ৭৩, আহত অগুন্তি

ভূমি পুজো উপলক্ষে আলোকিত অযোধ্যার ছবি 

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের অনুষ্ঠানে অন্তর্ভুক্তির জন্য আদবানি বলেন, “আমার বিশ্বাস রাম মন্দির ভারতকে শক্তিশালী, সমৃদ্ধশালী, শান্তিপ্রিয়, সম্প্রীতির প্রতীক হিসেবে বিশ্বসবায় তুলে ধরবে। অতীতে সুষ্ঠু সরকারের খ্যাতি লাভ করা রামরাজ্যই হয়ে উঠবে ভারত।” ভূমি পুজোর আগে লক্ষাধিক মাটির প্রদীপের আলোয় গোটা অযোধ্যা বেগুনী ও গেরুয়া আলোয় মুড়েছে। পবিত্র সরযূ ঘাটিতেও পড়েছে সেই আলোর প্রতিবিম্ব। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের ঘোষণায় দীপোৎসব উদযাপন করছে অযোধ্যা। বিজেপি ছাড়াও রাম মন্দিরের নির্মাণ শুরু হওয়ার ঘটনাটিকে স্বাগত জানিয়েছে বিরোধী কংগ্রেস। মঙ্গলবার দলের সাধারম সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর এক বিবৃতি প্রকাশ পেয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, এই মন্দিরে হিন্দুদের আশা আকাঙ্খা পূরণ করবে। একই সঙ্গে জাতীয় ঐক্য ও সাংস্কৃতি সম্প্রীতি বজায় রাখবে।