INX Media Case: দিল্লি হাই কোর্টের নির্দেশ, পি চিদাম্বরমের স্বাস্থ্যের হালহকিকত জানতে বৃহস্পতিবার সাতটায় বসছে এইমসের মেডিক্যাল বোর্ড
পি চিদম্বরম(Photo Credit: ANI)

নতুন দিল্লি, ৩১ অক্টোবর: প্রবীণ কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরমের (P Chidambaram) স্বাস্থ্য নিয়ে একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠনের নির্দেশিকা। এইমসকে (AIIMS) এই নির্দেশিকা পাঠাল দিল্লি হাই কোর্ট (Delhi High Court)। এ-ও জানানো হয়েছে যে শুক্রবারের আগে এই সংক্রান্ত নির্দেশিকা হাইকোর্টে পাঠাতে হবে এইমসকে। আদালতের নির্দেশিকা মেনে এই মেডিক্যাল বোর্ডে থাকবেন চিদাম্বরমের পারিবারিক চিকিৎসক ডাক্তার নাগেশ্বর রেড্ডি (Dr Nageshwar Reddy)। বৃহস্পতিবার রাত সাতটায় চিদাম্বরমের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বসবে মেডিক্যাল বোর্ড। পেটে ব্যথা নিয়ে গত সোমবারই ৭৪ বছরের প্রবীণ কংগ্রেস নেতাকে এইমসে ভর্তি করা হয়। তবে সেদিনি তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। পরে বুধবার অসুস্থতার কারণে যে জামিনের আবেদন চিদাম্বরম করেছিলেন, তা খারিজ করে দেয় দিল্লি হাইকোর্ট।

এর বদলে আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় (INX Media Case) অভিযুক্ত পি চিদাম্বরমকে আগামী ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠিয়ে দেয় দিল্লি হাই কোর্ট। এই রায়ের ভিত্তিতে পি চিদাম্বরমের ফের তিহাড় জেলে ঠাঁই হয়েছে। এই মর্মে ইডি-র আবেদনও খারিজ করে দেয় দিল্লি হাই কোর্ট। আইএনএক্স মিডিয়া কাণ্ডে দুটি পৃথক অভিযোগের তদন্ত করছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই ও ইডি। সিবিআই আইএনএক্স মামলায় চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনেছে। অন্যদিকে আর্থিক অসঙ্গতির তদন্ত করছে ইডি (ED)। ২০১৭-র ১৫ মে সিবিআই (CBI) চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে। এরপর ওই একই সময়ে ইডিও চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে দেয়। আইএনএক্স মিডিয়ার মালিক পিটার ও ইন্দ্রাণী মুখার্জিকে ৩০৫ কোটির বিদেশি লগ্নি এনে দিয়েছেন পি চিদাম্বরম, সৌজন্যে এফআইপিবি। সেই টাকা জুটিয়ে দিয়ে ভালরকম কমিশন খেয়েছেন ছেলে কার্তি চিদাম্বরম। তবে কর্তি বা চিদাম্বরমের অ্যাকাউন্টে সেই টাকার হদিশ মেলেনি। আরও পড়ুন-Girish Chandra Murmu Takes Oath: জম্মু-কাশ্মীরের প্রথম লেফটেন্যান্ট গভর্নর হিসেবে শপথ নিলেন গিরিশচন্দ্র মুর্মু, লাদাখের উপ-রাজ্যপাল হলেন আরকে মাথুর

এরপর দীর্ঘদিন চোরপুলিশ খেলা চলার পর গত ২১ আগস্ট নিজের বাড়ি থেকে সিবিআই-এর হাতে গ্রেপ্তার হন পি চিদাম্বরম। বেশ কিছুদিন তাঁকে জেরা করতে সিবিআই-এর সদর দপ্তরে রাখা হোক। তারপর তাঁর ঠাঁই হয় তিহাড় জেলে। সম্প্রতি সেখান থেকে ইডির হেফাজতে আসেন। অসুস্থতার করাণ গত সোমবার ইডির হেফাজত থেকে এইমস ও পরে সোজা ফের তিহাড় জেল।