Mamata On BJP: নিজেদের 'হাইওয়ে' ভাবার কারণেই ডুবছে বিজেপি, আক্রমণ মমতা ব্যানার্জির
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Photo Credits: Twitter)

কলকাতা, ২৮ নভেম্বর: মহারাষ্ট্রে (Maharastra) সরকার গড়ার স্বপ্ন ভাঙতে না ভাঙতেই পশ্চিমবঙ্গের উপনির্বাচনে (West Bengal By Poll) জোর ধাক্কা খেয়েছি বিজেপি (BJP)। রাজ্যের তিনটি আসনেই তৃণমূলের কাছে ধরাশায়ী হয়েছে তারা। আর তারপরই বিজেপিকে নানা ইশুতে কড়া সমালোচনা করেছেন তৃণমূল নেত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (Mamata Banerjee)। আজ নবান্ন থেকে বেরোনোর সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, "বিজেপি সর্বদা 'আইদার মাইওয়ে' অথবা 'হাইওয়ে'-র কথা বলে। আমাদের মতো দেশে জাতীয় এবং রাজ্য সড়ক রয়েছে। আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে হবে। যদি কেউ মনে করে যে তারা হাইওয়ে এবং আমরা নো ওয়ে, তবে আমরা তা মেনে নেব না।" মহারাষ্ট্রে জোট সরকার নিয়ে তিনি বলেন, "বাংলা দেশের সাংস্কৃতিক রাজধানী এবং মহারাষ্ট্র ভারতের আর্থিক রাজধানী। এই দুটি রাজ্যেই লোকেরা বিজেপির বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছে। আসল বিষয়টি হল লোকসভায় বড় জয় পাওয়ার ৫-৬ মাসের মধ্যে তাদের বিভিন্ন রাজ্যে প্রত্যাখ্যন করা হচ্ছে।"

রাজ্যের তিন কেন্দ্রের বিধানসভা উপনির্বাচনে সবমিলিয়ে ৩-০ গোলে তৃণমূল কংগ্রেস (TMC) বিজেপিকে পরাস্ত করেছে। বাংলার মানুষকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। বিজেপি তার অহঙ্কারের ফল পেল, কালিয়াগঞ্জে জয়ের পর সংবাদ মাধ্যমকে বললেন মমতা ব্যানার্জি। তিন কেন্দ্রের উপনির্বাচনে ভাল ফলের পর আশাবাদী শাসকদলের দাবি, আগামী ২০২১ তৃণমূল কংগ্রেস দুই তৃতীয়াংশের থেকেও বেশি ভোট পেয়ে ক্ষমতায় আসবে। মমতা ব্যানার্জি আবারও মুখ্যমন্ত্রী হবেন। আর আজকের এই জয় আসলে মা মাটি মানুষের জয়। সম্প্রীতির জয়, সর্ব ধর্মের মানুষের মেলবন্ধনের জয়। ২০২১-এর পরে আরও ভালোভাবে মানুষের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি তৃণমূল নেতৃত্বের। আরও পড়ুন: Uddhav Thackeray : মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের, অভিনন্দন জানালেন নরেন্দ্র মোদি

জয়ের খবরে বিকেলে মমতা ব্যানার্জি বলেন, "মানুষের আশীর্বাদে ঘাসফুলের জয় হয়েছে। অহঙ্কারের ফল পাচ্ছে বিজেপি (BJP)। মানুষ মনে করে বিজেপি বাংলার জন্য পাপ, দেশের পাপ। বিজেপি নিজেকে ওয়াশিং মেশিন ভাবে। সব কালো ধুয়ে তারা সাদা করছে। আর বিরোধীরা সব দুর্নীতিবাজ। এই উপনির্বাচন মনে করিয়ে দিল সমস্ত ধর্ম সম্প্রদায়ের মানুষ তৃণমূলের পাশে রয়েছে। ৫-৬ মাসের মধ্যেই বিজেপিকে জবাব দিয়ে দিয়েছে মানুষ। দেশ এক সন্ধিঃক্ষণে দাঁড়িয়ে আছে। এই পরিস্থিতিতে মানুষের এই রায় ঐতিহাসিক। গণতন্ত্র ও সংবিধান এখন বিপন্ন। এজেন্সি দিয়ে ভয় দেখিয়েছে বিজেপি।” তিনি আরও বলেন, “গোটা দেশে সর্বনাশী খেলা খেলছে বিজেপি। (NRC) নিয়ে সন্ত্রাস চালাচ্ছে। বিভেদের খেলা চালাচ্ছিল। তবে ওদের ঔদ্ধত্য, অহঙ্কাকার বাংলায় চলবে না। বাংলার মানুষ বুদ্ধিমান। তারাই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তিন আসনেই ভোটারদের ধন্যবাদ-জ্ঞাপন করতে আমি নিজে যাব। মানুষের আশীর্বাদেই তিন কেন্দ্রে সবুজ ঝড়। এই ফলাফলের মাধ্যমেই মানুষ বলেছে ১-২-৩, বিজেপিকে বিদায় দিন।”