Allahabad: ভগবান রাম ও কৃষ্ণের প্রতি রাষ্ট্রীয় সম্মান জানাতে আইন আনার প্রয়োজন আছে: এলাহাবাদ হাইকোর্ট
Allahabad High Court (Photo Credits: ANI)

এলাহাবাদ, ১০ অক্টোবর: ভগবান রাম (Ram), কৃষ্ণ (Krishna), রামায়ণ (Ramayan) ও গীতার (Gita) মতো মহাকাব্য, এর লেখক বাল্মীকি ও বেদ ব্যাসকে রাষ্ট্রীয় সম্মান জানানোর জন্য একটি আইন আনার প্রয়োজন আছে। গতকাল একটি জামিনের মামলার শুনানিতে এই মন্তব্য করল এলাহাবাদ হাইকোর্ট (Allahabad High Court)। বিচারপতি শেখর কুমার যাদবের আরও যোগ, এগুলি দেশের সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য। সোশাল মিডিয়ায় হিন্দু দেবতাদের আপত্তিকর ছবি শেয়ার করার জন্য আকাশ জাটভে নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। গত ১০ মাস ধরে জেলে বন্দী থাকার কারণে আদালত আকাশকে জামিন দিয়েছে। তবে মামলার বিচার এখনও শুরু হয়নি।

আকাশের জামিনের আবেদনের শুনানিতে বিচারপতি শেখর কুমার যাদব (Justice Shekhar Kumar Yadav) বলেন, "ভগবান রাম, ভগবান কৃষ্ণ, রামায়ণ, গীতা এবং লেখক মহর্ষি বাল্মীকি, মহর্ষি বেদ ব্যাসকে রাষ্ট্রীয় সম্মান জানানোর জন্য সংসদে একটি আইন আনার প্রয়োজন, কারণ তারা দেশের সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য।" হাইকোর্ট আরও বলেছে, "সারা দেশের স্কুলে বাধ্যতামূলক ভাবে ভারতীয় সংস্কৃতি সম্পর্কে শিশুদের জানানোর প্রয়োজন আছে।" আদালত আরও বলেছে যে রাম জন্মভূমি মামলায় সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্ট তাদের রায় দিয়েছে। রায় তাদের পক্ষে গিয়েছে , যারা ভগবান রামের প্রতি বিশ্বাস করে। রাম ভারতের আত্মা এবং সংস্কৃতি। রাম ছাড়া ভারত অসম্পূর্ণ। আরও পড়ুন: Babul Supriyo: সাংসদ পদ ছাড়তে চেয়ে লোকসভার স্পিকারের সময় চেয়ে চিঠি বাবুল সুপ্রিয়-র

আবেদনকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে আদালত বলে, অনেক দেশে এই ধরনের আচরণের জন্য কঠোর শাস্তির বিধান রয়েছে। অশালীন মন্তব্য করার পরিবর্তে দেবতা ও দেশের সংস্কৃতির প্রতি সম্মান দেখানো উচিত। বিচারপতি যাদব বলেন, "ভারতের সংবিধান একজনকে নাস্তিক হওয়ার অনুমতি দেয়, কিন্তু এর অর্থ এটা নয় যে কেউ দেব-দেবী নিয়ে অশ্লীল মন্তব্য করতে পারে।"