Mukesh Ambani: ফেসবুককে ৯.৯৯ শতাংশ শেয়ার বেচে ফের এশিয়ার ধনীতম ব্যক্তি মুকেশ আম্বানি
মুকেশ আম্বানি (Photo Credits: IANS)

নতুন দিল্লি, ২৩ এপ্রিল: ফেসবুক জিও-র ৯.৯৯ শতাংশ শেয়ার কিনে নেওয়ায় ফের এশিয়ার ধনীতম ব্যক্তিরআসনে রিলায়েন্স গ্রুপের চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি (Mukesh Ambani)। বুধবারই মুকেশ আম্বানির মোট সম্পত্তি ৪.৭ বিলিয়ন থেকে বেড়ে ৪৯.২ বিলিয়ন হয়েছে। সৌজন্যে ফেসবুক। এরফলে আলিবাব জ্যাক মা এশিয়ার ধনীতম ব্যক্তির তকমা হারালো। ব্লুমবার্গ বিলিয়নেয়ার্সের সূচক অনুসারে আম্বানির ধনভাগ্য জ্যাক মা-র থেকে তাঁকে ৩.২ব বিলিয়নে এগিয়ে রেখেছে। রাতভর অপরিশোধিত তেলের মূল্য ৩০ শতাংশ পড়ে যাওয়াতেই এই পতন। গত দশ বছরে এত বড় পতন দেখল রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ। ৫.৮ বিলিয়নের শেয়ার পড়েছে আম্বানিদের। গত ফেব্রুয়ারি মার্চে মুকেশ আম্বানি সম্পত্তির ১৯ বিলিয়ন ডলার হ্রাস পাওয়ায় আট তম ধনী থেকে মুকেশে অবস্থান নেমে যায় ১৭-তে ।

উল্লেখ্য, ৯.৯৯ শতাংশ শেয়ারের (9.99 per cent stake) জন্য এবার জিও-তে বিনিয়োগ করতে চলেছে ফেসবুক (Facebook)। সংস্থার তরফে ইতিমধ্যেই বিষয়টি জানানো হয়েছে। এই আকালের বাজারে ফেসবুক জিও-কে (Jio Platforms) দেবে ৪৩ হাজার ৫৭৫ কোটি টাকা। রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের তরফে এই বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। জিও প্ল্যাটফর্মকে দেওয়া ফেসবুকের প্রাক মানি বিনিয়োগ ৪.৬ লক্ষ কোটি টাকা।ফেসবুকের এই বিনিয়োগ জিও প্ল্যাটফর্মে ৯.৯৯ শতাংশ শেয়ারের সুযোগ দেবে। সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর এক বিবৃতিতে এই তথ্যই জানা গিয়েছে। আরও পড়ুন- Facebook: ৪৩,৫৭৫ কোটির বিনিয়োগ, জিও-র ৯.৯৯ শতাংশের মালিক এখন ফেসবুক

মুকেশ আম্বানির সংস্থা জিও প্ল্যাটফর্মস লিমিটেডে ৪৪ হাজার কোটি টাকার লগ্নি করেছেন ফেসবুকের মালিক মার্ক জুকারবার্গ। জিও প্ল্যাটফর্মের ৯.৯৯ শতাংশ মালিকানা কিনে নিয়েছে ফেসবুক। ফেসবুক-হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে নতুন ই-কমার্স ব্যবসার উদ্যোগ নিয়েছে রিল্যায়ান্স। দেশের ছোট ব্যবসায়ীদের ডিজিটাল মডেলের আওতায় আনতে রিল্যায়ান্স জিও-র নতুন ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম জিওমার্টকে হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গে জুড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুকেশ আম্বানি। দেশের ছোট ও মাঝারি দোকান, মুদি, স্টেশনারি দোকান, হকার, ছোট ব্যবসায়ীদের এক ছাতার তলায় আনতে জিওমার্ট ও হোয়াটসঅ্যাপ মিলে তৈরি হচ্ছে নতুন ই-কমার্স মডেল। যার মাধ্যমে অনলাইনেই স্থানীয় দোকান বা বাজার থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র অর্ডার দেওয়া যাবে। দাম মেটানো যাবে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমেই। সেই অর্ডার নিয়ে বাড়ির দরজায় পৌঁছে দেবে জিওমার্ট।