Karnataka: অন্য পুরুষের সঙ্গে স্ত্রী-র শারীরিক সম্পর্কের ভিডিও আদালতে জমা দিয়ে বিবাহ বিচ্ছেদ পেলেন ব্যক্তি
Representational image | (Photo Credits: Unsplash)

বেঙ্গালুরু, ২৩ নভেম্বর: অন্য পুরুষের সঙ্গে স্ত্রী-র শারীরিক সম্পর্ক (Physical relation) রয়েছে। এই অভিযোগ তুলে বিবাহ বিচ্ছেদের (Divorce case) মামলা করেন এক ব্যক্তি। প্রমাণ হিসেবে স্ত্রী ও অন্য পুরুষের শারীরিক সম্পর্কের ভিডিও জমা দেন আদালতে। সব দেখে শুনে বিচারক বিবাহ বিচ্ছেদে সায় দেন। ঘটনাটি ঘটেছে কর্নাটকের (Karnataka) বেঙ্গালুরুর বাল্লারিতে। ১৯৯১ সালে ওই দম্পতির বিয়ে হয়। তাঁদের দুই মেয়ে রয়েছে। স্ত্রী-র উপরে সন্দেহ হওয়াতে ওই ব্যক্তি শোাবার ঘরের মধ্যে একটি ডিজিটাল ভিডিও রেকর্ডার লুকিয়ে রাখেন। এরপর ২০০৮ সালের ৪ জুন থেকে ৯ জুন পর্যন্ত তিনি বাড়ি ছেড়ে অন্য জায়গায় গিয়ে থাকেন। বাড়ি ফিরে তিনি দেখেন এক বন্ধুর সঙ্গে তাঁর স্ত্রী-র শারীরিক সম্পর্কের ভিডিও ধরা পড়েছে ক্যামেরায়। এরপরই ওই ব্যক্তি বাল্লারির দেওয়ানি আদালতে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা করেন স্ত্রীর বিরুদ্ধে ব্যাভিচার ও নিষ্ঠুরতার অভিযোগ তুলে।

আদালতে মামলা উঠলে বিচারক নিষ্ঠুরতার অভিযোগ খারিজ করে দেন। বেশ কয়েকবছর মামলা চলার পর ২০১৩ সালের ৩০ জুলাই ভিডিও দেখার পর ব্যাভিচারের অভিযোগে সারবত্তা পেয়ে বিবাহ বিচ্ছেদের অনুমতি দেন বিচারক। যদিও সেই রায়ের বিরুদ্ধে মহিলা আবেদন করেন হাইকোর্টে। আদালতে তিনি দাবি করেন, তাঁর স্বামীর পর্নোগ্রাফি ফিল্ম তৈরির অভ্যাস রয়েছে। তাঁকে জোর করে এই ফিল্মে অভিনয় করতে। তিনি বিবাহ বিচ্ছেদ খারিজ করার দাবি জানান। আরও পড়ুন: Woman Sarpanch Climbs JCB During Anti-Encroachment Drive: বেআইনি নির্মাণ ভাঙার তদারকিতে এসে জেসিবি চড়ে বসলেন মহিলা সরপঞ্চ, ব্যাপারটা কী?

যদিও হাইকোর্টের বিচারপতি অলোক আর্ধে ও পিজিএম পাতিলের ডিভিশন বেঞ্চ বলে, মামলাকারী ভিডিওর কনটেন্ট ও সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেননি। তাছাড়া আগে তিনি কেন পর্নোগ্রাফি ফিল্ম তৈরির বিষয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগও জানাননি। বিচারপতিরা বলেন, "অভিযোগের সত্যতা আছে। তাছাড়া দম্পতির দুই মেয়ের মধ্যে একজন জানিয়েছে যে তারা ২০০৮ সালের ৪ জুলাই থেকে ৯ জুলাই মায়ের সঙ্গেই ছিল। তারা কোথাও তাদের বাবা বাড়িতে ছিল বলে উল্লেখ নেই।"