Coronavirus In India: কর্ণাটকে প্রথম করোনা আক্রান্তের সন্ধান মিলল, বেঙ্গালুরুর অঙ্গনওয়াড়িতে ৭ দিনের ছুটি ঘোষণা
করোনাভাইরাস (Photo Credits: IANS)

বেঙ্গালুরু, ৯ মার্চ: দিনে দিনে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়েই চলেছে। সোমবার রাত পর্যন্ত ৪৪ জনের শরীরে সিওভিআইডি-১৯ এর প্রমাণ মিলল। কর্ণাটকের (Karnataka) শিক্ষা স্বাস্থ্য মন্ত্রী কে সুধাকর বলেন, বেঙ্গালুরর এক বাসিন্দার শরীরে করোনাভাইরাসের জীবাণু মেলেন। আক্রান্ত ব্যক্তি বেশ কিছুদিন আগে মার্কিন মুলুকে ঘুরে এসেছেন। এরপর সংক্রমণ এড়াতে বেঙ্গালুরুর সমস্ত প্রাথমিক স্কুলগুলিকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য ছুটি ঘোষণা করেছে।

বেঙ্গালুরুর অঙ্গনওয়াড়ি স্কুলগুলিতে ছুটি দেওয়া হয়েছে। কারণ পার্শ্ববর্তী রাজ্যে তামিলনাড়ু ও কেরালাতে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। তাই সুরক্ষার কারণেই কিন্ডারগার্টেন স্কুলে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। শিশু ও নারী কল্যাণ মন্ত্রক অঙ্গনওয়াড়িতে সাতদিনের জন্য ছুটি ঘোষণা হয়েছে। এ দিন সকালে জম্মু-কাশ্মীরে ৬৩ বছরের এক বৃদ্ধার শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছে। তাতে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪৩-এ গিয়ে পৌঁছেছে। রবিবারই কেরলে একই পরিবারের পাঁচ জনের শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়ে, যার মধ্যে তিন জন সম্প্রতি ইতালি থেকে ফিরেছেন বলে জানা গিয়েছে। আরও পড়ুন- Coronavirus Outbreak In India: কেরালার ৩ বছরের শিশু-সহ ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪৩, বাদ গেল না জম্মু কাশ্মীরও

বিদেশ ফেরত সকলের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কেরলের সমস্ত বিমানবন্দরেই ডাক্তারি পরীক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু তাঁরা যে ইতালি থেকে ফিরছেন, আক্রান্ত তিন জন বিমানবন্দরে তা খোলসা করেননি বলে দাবি করেছেন রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কেকে শৈলজা। দেশ জুড়ে এমন পরিস্থিতিতে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সমস্ত বন্দরে যাত্রিবাহী বিদেশি জাহাজের আনাগোনা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। কেরলে এ বার তিন বছরের শিশুর শরীরে ধরা পড়ল করোনাভাইরাস। মা-বাবার সঙ্গে গত ৭ মার্চ ইতালি থেকে দুবাই হয়ে দেশে ফিরেছিল শিশুটি। কোচি বিমানবন্দরে ডাক্তারি পরীক্ষায় তার শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়ে। এই মুহূর্তে এর্নাকুলাম মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসা চলছে তার। তাঁদের শরীরেও সংক্রমণ ছড়িয়েছে কি না জানতে শিশুটির মা-বাবাকেও হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন তাঁরা। ৪০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস রয়েছে। বাকি তিনজনের রক্তে সিওভিআইডি-১৯ পজিটিভ মিললেও চিকিৎসার পর তিনজনকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। গোটা দেশে এই সংক্রান্ত মৃত্যুর কোনও খবর এখন পর্যন্ত নেই।