PM Modi: উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রীর ফোন, মুখ খুললেন হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী
জয়রাম ঠাকুর, মোদী

দিল্লি, ৮ মে: গোটা দেশ জুড়ে করোনার (Corona) গ্রাস ক্রমশ বেড়ে চলেছে। সংক্রমণের হার যেমন বাড়ছে, তেমনি মৃত্যুর সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে। সবকিছু মিলিয়ে করোনার (COVID 19) দ্বিতীয় ঢেউয়ের জেরে পরিস্থিতি এখনও ভয়াবহ। করোনার থাবা যত বৃদ্ধি পাচ্ছে, তত কাপলে ভাঁজ পড়ছে কেন্দ্র সহ রাজ্যগুলির কপালে। করোনা সংক্রমণের মাত্রা কমার তুলনায় যখন হু হু করে বাড়ছে, সেই সময় উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রী ফোন করেন চার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে। মহারাষ্ট্র (Maharashtra), তামিলনাড়ু, মধ্যপ্রদেশ এবং হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন করেন প্রধানমন্ত্রী। ওই চার রাজ্যে করোনা পরিস্থিতির খোঁজ নিতেই সেখানেকার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন মোদী (Narendra Modi)।

প্রধানমন্ত্রীর ফোন পাওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেন হিমাচল প্রদেশের (HP) মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর। তিনি বলেন, উদ্বেগজনক করোনা পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ২-৩টি বিষয়ে তাঁর কথা হয়েছে। করোনার জেরে মানুষের মৃত্যুর পরিমাণ যখন বাড়ছে, সেই সময় বেশ কিছু নিয়মের ঘেরাটোপে যাতে প্রতিদিনের জীবনকে আটকে রাখা যায়, সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর কথা হয় বলে জানান জয়রাম ঠাকুর।

আরও পড়ুন: Mucormycosis Link With Coronavirus: করোনার মধ্যে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের চোখ রাঙানি, মারণ রোগের লক্ষ্মণ কী দেখুন

পাশাপাশি হিমাচল প্রদেশকে যাতে আরও বেশি করে অক্সিজেন সরবরাহ করা হয়, সে বিষয়েও প্রধানমন্ত্রীর কাছে তিনি আবেদন করেন। রাজ্যের করোনা আক্রান্ত রোগীদের বাঁচাতে আরও বেশি অক্সিজেন (Oxygen) সিলিন্ডার প্রয়োজন বলে প্রধামন্ত্রীর কাছে তিনি আবেদন করেন বলে জানান জয়রাম ঠাকুর। কেন্দ্রের তরফে রাজ্যকে সমস্ত রকমের সাহায্য করা হবে বলে প্রধানমন্ত্রী তাঁকে আশ্বস্ত করেন বলে জানান জয়রাম ঠাকুর।

এদিকে করোনা উদ্বেগজনক করোনা পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী যখন চার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন, সেই সময় কেরালায় বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। কেরালায় শনিবার নতুন করে ৪১,৯৭১ জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে খবর। যার মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৬৪ জনের। তবে দক্ষিণের এই রাজ্যে ২৭,৪৫৬ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন বলেও জানা যাচ্ছে।