আই অ্যাম দ্য বস অব দ্য ফ্লাইট!  বিমান সেবিকার শ্লীলতাহানি করে চিৎকার অভিযুক্তের
প্রতীকী ছবি(File Photo)

সিঙ্গাপুর, ৫ আগস্ট:  মাঝ আকাশে বিমান সেবিকার শ্লীলতাহানি করেছেন। অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় শাস্তির মুখে সিঙ্গাপুর প্রবাসী ভারতীয় নাগরিক। ধৃতের নাম বিজয়ন মথন গোপাল(৩৯)। তিনি সিঙ্গাপুরের বাসিন্দা। ২০১৭-র ২ নভেম্বর স্কুট এয়ারলাইন্সের বিমানে উঠেছিলেন। কোচি থেকে সিঙ্গাপুর আসছিল বিমানটি। সিঙ্গাপুরে পৌঁছানোর পর অভিযোগ ওঠে,  তিনি এক বিমান সেবিকার শ্লীলতাহানি করেছেন। সেই নিয়ে মামলা চলছিল প্রায় দু’বছর। সোমবার সিঙ্গাপুরের আদালতে অপরাধ প্রমাণিত হয়েছে। অভিযোগকারিণী বিমানসেবিকা আদালতে বলেছেন, অপরাধী সেদিন বিমানে ওঠেন সকলের শেষে। তাঁর শরীর থেকে অ্যালকোহলের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল। আরও পড়ুন-উন্নাওয়ের নির্যাতিতার পরিস্থিতি ভাল না, তাঁকে দিল্লি উড়িয়ে আনার নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

কোনওরকমে তিনি নিজের সিট অবধি হেঁটে যান। বিমান সেবিকার হাতে নিজের বোর্ডিং পাসটি দেন। বিমান ওড়ার পরেই অভিযোগকারিণী দেখতে পান, ওই যাত্রীর সঙ্গে আর এক স্টুয়ার্ডেসের ঝগড়া শুরু হয়েছে। তিনি কাছে গিয়ে জানতে পারেন, বিজয়ন খাবার ও রেড ওয়াইন আনার অর্ডার দিয়েছেন কিন্তু তার দাম দিতে চাইছেন না। তখন অভিযোগকারিণী বিজয়নকে শান্ত করার জন্য বলেন, ঠিক আছে, আপনাকে আগে খাবার ও পানীয় সরবরাহ করা হবে। পরে আপনি দাম দেবেন। কিন্তু বিজয়ন বলেন, তিনি এই প্লেনে কিছু খাবেন না। কারণ তাঁর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করা হয়েছে। ওই সময় বিমানে এক যাত্রী অক্সিজেনের অভাবে অসুস্থ হয়ে পড়লে অভিযোগকারিণী তাঁকে দেখতে যান। বিজয়ন ঘন ঘন কল লাইট বাটন টিপে তাঁকে ডাকতে থাকেন। ইতিমধ্যে অসুস্থ যাত্রীর কাছে এক নার্স আসলে ফের বিজয়েনর কাছে আসেন অভিযোগকারিণী ফের আসেন বিজয়নের কাছে। অভিযোগ, তখনই ওই যাত্রী বিমানসেবিকাকে অশালীনভাবে স্পর্শ করেন। বিমানসেবিকা আপত্তি করলে বিজয়ন চিৎকার করে বলেন, আই অ্যাম দ্য বস অব দ্য ফ্লাইট!

আদালতে মামলা গেলে বিজয়ন নিজেকে বাঁচাতে গোটা দোষটাই ওই বিমান সেবিকার উরে চাপানোর চেষ্টা করেছিলেন তবে লাভ হয়নি। দুবছর পরে হলেও সাজা এবার পাবেন তিনি। দুবছরের কারাদণ্ডের সঙ্গে জরিমানা ও বেতের ঘা।