HC To Decide Inventor Of Butter Chicken-Dal Makhni: কোন রেস্তোরাঁ আবিষ্কার করেছে বাটার চিকেন, ডাল মাখানি! খতিয়ে দেখবে দিল্লি হাইকোর্ট
Butter Chicken Dal Makhani (Photo Credit: @k_disha/ X)

বাটার চিকেন ও ডাল মাখানি কে আবিষ্কার করেন? মোতি মহল (Moti Mahal) এবং দরিয়াগঞ্জ (Daryaganj) রেস্তোরাঁগুলির মধ্যে বিরোধের রায় দিয়ে দিল্লি হাইকোর্ট আগামী দিনে এই জিভে জল আনা প্রশ্নের উত্তর দিতে পারে। 'বাটার চিকেন ও ডাল মাখানির উদ্ভাবক' (Inventor Of Butter Chicken-Dal Makhni) ট্যাগলাইন ব্যবহার করায় দরিয়াগঞ্জ রেস্তোরাঁর মালিকদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন মোতি মহলের মালিক। মোতি মহল দাবি করেছে যে দরিয়াগঞ্জ রেস্তোরাঁ 'মানুষকে ভুল বিশ্বাস করাচ্ছে'। তাঁদের অভিযোগ দিল্লির দরিয়াগঞ্জ এলাকায় প্রথম শাখা খোলায় দরিয়াগঞ্জ রেস্তোরাঁ এবং মোতি মহলের মধ্যে একটি সম্পর্ক রয়েছে এই ভুল তথ্য তারা ছড়াচ্ছে। ১৬ জানুয়ারি বিচারপতি সঞ্জীব নারুলার অধীনে এই মামলার শুনানি হয়, যেখানে আদালত সমন জারি করে এবং দরিয়াগঞ্জ রেস্তোরাঁ মালিকদের এক মাসের মধ্যে মামলার লিখিত জবাব দাখিল করতে বলে। বিচারপতি নারুলা মোতি মহলের অন্তর্বর্তী নিষেধাজ্ঞার আবেদনের বিষয়েও নোটিশ জারি করে এবং ২৯ মে শুনানির তারিখ রেখেছেন। Fact Check: রাম মন্দির প্রতিষ্ঠার দিনে ৫০০টাকার নোটে মহাত্মা গান্ধীর বদলে শ্রীরাম? খবরের সত্যতা জেনে নিন এক ক্লিকে

কয়েক বছর ধরেই রেস্তোরাঁ দুটি চেইন দাবি করে আসছে যে তারা বাটার চিকেন এবং ডাল মাখানি আবিষ্কার করেছে। একদিকে মোতি মহলের মালিকরা বলছেন যে তাদের পূর্বসূরী প্রয়াত কুন্দল লাল গুজরাল এমন খাবার আবিষ্কার করেন যা এখন বিশ্বজুড়ে ভারতীয় খাবারের খ্যাতি এনে দিয়েছে, অন্যদিকে দরিয়াগঞ্জ রেস্তোঁরা বলেছে যে প্রয়াত কুন্দন লাল জাগ্গি এই খাবারগুলি আবিষ্কার করেন। মামলায় মোতি মহল দাবি করেছে যে তাদের পূর্বসূরি গুজরালই প্রথম তন্দুরি চিকেন তৈরি করেন এবং পরে বাটার চিকেন এবং ডাল মাখানিও তৈরি করেন এবং দেশভাগের পরে ভারতে এই রান্না নিয়ে আসেন। তাঁদের দাবি, প্রথম দিকে অবিক্রীত চিকেনের অবশিষ্টা ফ্রিজে সংরক্ষণ করা যেত না এবং গুজরাল তাঁর রান্না করা মুরগির মাংস শুকিয়ে যাওয়া নিয়ে চিন্তিত হয়ে এইভাবে একটি সস আবিষ্কার করেন।

যদিও দরিয়াগঞ্জ এখনও এই মামলার কোনও প্রতিক্রিয়া দাখিল করেনি, তাদের আইনজীবীরা ১৬ জানুয়ারি আদালতে হাজির হন এবং পুরো মামলাটিকে 'ভিত্তিহীন' বলে অভিহিত করে অভিযোগের তীব্র বিরোধিতা করেন। তাদের যুক্তি ছিল যে তারা কোনও মিথ্যা উপস্থাপনায় জড়িত নয় এবং মামলায় যে অভিযোগ করা হয়েছে তা সত্য থেকে অনেক দূরে। তারা বলেন, প্রথম মোতি মহল রেস্তোরাঁটি উভয় পক্ষের পূর্বসূরিরা (মোতি মহলের গুজরাল এবং দরিয়াগঞ্জ রেস্তোরাঁর জাগ্গি) যৌথভাবে পেশোয়ারে প্রতিষ্ঠা করেন।