COVID-19: যোগী রাজ্যে করোনা মাতার মন্দির ভাঙল প্রশাসন
করোনা মাতার পুজো চলছিল। (ছবি: টুইটার)

প্রতাপগড়, ১২ জুন: করোনা থেকে বাঁচতে গ্রামবাসীরা বানিয়েছিল করোনা মাতা-র মন্দির। কোভিড (COVID 19) থেকে রক্ষা পেতে 'করোনা মাতার' পুজো। নিম গাছের নীচে করোনা মাতার মন্দির তৈরি করে সেখানে চলছে পুজো অর্চনা। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছিল উত্তরপ্রদেশের প্রতাপগড় জেলার শুক্লাপুর গ্রামে। শুক্লাপুর গ্রামের বাসিন্দাদের কথায়, কোভিড ১৯ যে হারে থাবা বসাচ্ছে, তাতে ভয় পেয়েই এই পুজো শুরু হয়েছে। মারণ ভাইরাসের থাবা থেকে মানুষকে রক্ষা করতে করোনা মাতার (Corona Mata) পুজো চলছে বলে জানান স্থানীয়রা। মানুষের অন্ধ বিশ্বাস দূর করতে সেই করোনা মন্দির ভাঙল স্থানীয় প্রশাসন। আরও পড়ুন: Kedarnath Temple: ধরনায় বসলেন কেদারনাথ মন্দিরের পূজারীরা

প্রয়াগরাজ রেঞ্জের পুলিশের এক উচ্চ কর্তা জানান, করোনা নিয়ে দরকার বৈজ্ঞানসম্মত জ্ঞান, সচেতনা। সেখানে কু সংস্কার, অন্ধ বিশ্বাসের জায়গা নেই। তাই এই মন্দির গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলার পর সরিয়ে ফেলা হল। তিনি আরও জানান, করোনায় গ্রামবাসীদের সচেতনার জন্য তাঁরা কর্নসূচি নিচ্ছেন। অন্ধবিশ্বাসে করোনা যায় না, যায় সচেতনতায় সেটাই বোঝানো হচ্ছে।

পুলিশের কাছে নাগেশ কুমার শ্রীবাস্তব নামের এক ব্যক্তি জানান, তার ভাই লোকেশ কুমার গাজিয়াবাদ থেকে এসে পরিবারের কারও সঙ্গে আলোচনা না করেই এই করোনা মাতার মন্দির বানান। তারপর সে গাজিয়াবাদে চলে যায়।

তবে করোনা মাতার মন্দিরে সব কোভিড প্রোটোকলই মানা হচ্ছিল। সবাই সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে পুজো দিচ্ছিলেন, মাস্ক পরাও বাধ্যতামূলক ছিল। এমনকী করোনা মাতার মূর্তিতেও পরানোছিল মাস্ক।